অস্ট্রেলিয়াজুড়ে পুলিশি নির্যাতনবিরোধী সংহতি মিছিল

বিদেশ: যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যে পুলিশি হেফাজতে নির্যাতনের মুখে নিরস্ত্র আফ্রো-আমেরিকান নাগরিক জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে জোরদার হওয়া পুলিশি নির্যাতন ও বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনের (ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার মুভমেন্ট) সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেছেন অস্ট্রেলিয়ার সাধারণ মানুষ।

শনিবার (৬ জুন) অস্ট্রেলিয়ার সিডনি, ব্রিসবেন, মেলবোর্ন, ভিক্টোরিয়া, নিউ সাউথ ওয়েলস, হোবার্ট, অ্যাডিলেডসহ প্রধান প্রধান শহরগুলোতে প্রতিবাদ মিছিলে হাজারো অস্ট্রেলিয়ান যোগ দিয়েছেন। খবর বিবিসি। একই সঙ্গে ওই প্রতিবাদ মিছিলে অংশগ্রহণকারীরা অস্ট্রেলিয়ার আদিবাসীদের ওপর চলমান অত্যাচার ও প্রান্তিকীকরণের বিরুদ্ধেও তাদের অবস্থান ব্যক্ত করছেন।

এর আগে, এই প্রতিবাদ মিছিলের কর্মসূচি ঘোষিত হওয়ার সঙ্গেসঙ্গেই, অস্ট্রেলিয়ার পুলিশের পক্ষ থেকে এই কর্মসূচির অনুমতি না দেওয়ার জন্য নির্বাহী বিভাগের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়। নিষেধাজ্ঞা আসলে তা অমান্য করার জন্য আন্দোলনকারীরাও প্রস্তুত ছিলেন। কিন্তু, নিউ সাউথ ওয়েলসের একটি আদালত মিছিল শুরুর ঠিক আগ মুহুর্তে কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার পক্ষে মত দেওয়ায় শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালন করেছেন অস্ট্রেলিয়ানরা এদিকে, প্রতিবাদ মিছিলে অংশগ্রহণকারীরা ব্যানারে ‘আই ক্যান্ট ব্রেথ’, ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’, ‘সেইম স্টোরি, ডিফরেন্ট ল্যান্ড’ স্লোগান লিখে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা প্রদক্ষিণ করেন।

এসময়, নভেল করোনাভাইরাসের গণসংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুসারে শারীরিক দূরত্ব এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি মেনেই কর্মসূচি চালানো হয়েছে বলে আয়োজকদের পক্ষ থেকে বিবিসিকে জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে, অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়ার পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে স্বাস্থ্যগত জরুরি অবস্থার মধ্যে এ ধরনের কর্মসূচি আয়োজন করায় আয়োজকদের প্রত্যেককে এক হাজার ৬৫২ অস্ট্রেলিয়ান ডলার করে জরিমানা করা হবে। প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের মিনিয়াপোলিস শহরে পুলিশি নির্যাতনের মুখে কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিক জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যু হয় ২৫ মে।

তারপর থেকে পুলিশি নির্যাতন ও বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনে উত্তাল হয়ে ওঠে পুরো যুক্তরাষ্ট্র। সেই আন্দোলনের স্ফুলিঙ্গ ছড়িয়ে পড়ে সারা দুনিয়ায়। তারই অংশ হিসেবে অস্ট্রেলিয়াজুড়ে এই সংহতি মিছিল অনুষ্ঠিত হলো।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *