অস্ট্রেলিয়া ১০ হাজার দর্শককে মাঠে প্রবেশের অনুমতি দিবে

স্পোর্টস: করোনা সঙ্কট কাটিয়ে অনেক দেশেই দর্শক শূন্য মাঠে ফিরতে শুরু করেছে ক্রীড়া আসর। এরইমধ্যে বেশির ভাগ ক্লাব ফুটবলগুলো মাঠে গড়িয়েছে। ইংল্যান্ডের মাটিতেও শুরু হতে যাচ্ছে ক্রিকেট। তবে ব্যতিক্রমী চিন্তা নিয়ে মাঠে ক্রীড়া আসর ফেরাতে প্রস্তুতি নিচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। আগামী মাস থেকে অস্ট্রেলিয়ার স্টেডিয়ামগুলোতে সর্বোচ্চ ১০ হাজার সমর্থকের প্রবেশের অনুমতি দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন।

কোভিড-১৯ সংকট কাটিয়ে অস্ট্রেলিয়া এখন অনেকটাই ঝুঁকিমুক্ত। নিউজিল্যান্ডে শুরু হওয়া সুপার রাগবি টুর্নামেন্টে দর্শকদের প্রবেশের অনুমতি দেয়ার একদিন আগে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকেও একই ঘোষনা আসলো। মরিসন জানিয়েছেন, এই অনুমতি শুধুমাত্র সেসব স্টেডিয়ামকেই দেয়া হবে যেগুলোর ধারনক্ষমতা ৪০ হাজার কিংবা তার কম।

এখনই মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ড কিংবা এডিলেড ওভালের মত বড় স্টেডিয়ামগুলোকে খুলে দেবার বিষয়টি তিনি উড়িয়ে দিয়েছেন। এ সম্পর্কে স্থানীয় গণমাধ্যমে মরিসন বলেছেন, ‘আমরা তৃতীয় ধাপের দিকে এগুচ্ছি। করোনা সংক্রমনের হার অনেকটাই কমে যাওয়ায় আমরা অপেক্ষাকৃত ছোট স্টেডিয়ামগুলোর ব্যপারে এই সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছি।’

ভেন্যুর ধারনক্ষমতার ২৫ শতাংশের মধ্যে দর্শকের উপস্থিতি সীমিত রাখতে হবে। প্রত্যেক্যেই টিকিট কেটে সামাজিত দূরত্ব মেনে নির্দিষ্ট আসনে বসতে হবে। মরিসন আরো বলেন, ‘এটা এমন একটি বিষয় যা সরাসরি ঘটে যাওয়া বা মানিয় নেয়া সম্ভব না। এ ক্ষেত্রে অনেক চিন্তাভাবনা করেই এসব করতে হয়েছে।।’ এই মুহূর্তে বড় স্টেডিয়ামগুলোতে বেশী সংখ্যক দর্শকের উপস্থিতিতে সামাজিক দূরত্বের বিষয়টি শতভাগ মানা সম্ভব নয়।

সে কারনেই ঐসব স্টেডিয়ামগুলো বন্ধ রাখা হয়েছে। বিশেষ করে এসব ভেন্যুতে যাতায়াতের ক্ষেত্রে গণপরিবহনের বিষয়টিও মাথায় রাখতে হচ্ছে। এ কারনেই মধ্যম সারির এরিনা যেমন ক্যানবেরা স্টেডিয়াম, মেলবোর্নের এএএমআই পার্কে আগামী ৩ জুলাই থেকে সুপার রাগবি শুরু হতে যাচ্ছে। করোনা ভাইরাসের কারণে অস্ট্রেলিয়ার সব ধরনের ক্রীড়া আসরে মধ্য মার্চ থেকে দর্শকের উপস্থিতি নিষিদ্ধ করা হয়।

তবে ইতোমধ্যেই অস্ট্রেলিয়া কোভিড-১৯ বেশ ভালভাবেই নিয়ন্ত্রনে এনে ফেলেছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!