আজ ৬ নভেম্বর আটঘরিয়া বংশিপাড়া যুদ্ধ দিবস : দিনব্যাপী নানা কর্মসূচী

বিশেষ প্রতিবেদক: আজ ৬ নভেম্বর পাবনার আটঘরিয়ার বংশিপাড়া যুদ্ধ দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে আটঘরিয়া উপজেলার মাজপাড়া ইউনিয়নের বংশিপাড়া গ্রামে পাকিস্থানী হানাদার বাহিনীর সংগে সম্মুখ যুদ্ধে ১০ জন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন এবং নিহত হন অর্ধশতাধীক হানাদার বাহিনী।
বেরুয়ান গ্রামের বীরমুক্তযোদ্ধা কামরুল ইসলাম ফুট বলেন, ১৯৭১ সাল নভেম্বর মাস সাড়া দেশে যুদ্ধ ক্রমেই দানা বেধে আসছে। ভারত থেকে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধার একটি দল আটঘরিয়া উপজেলায় অবস্থান করছিল। ৩ নভেম্বর আটঘরিয়ার চাঁদভা ইউনিয়নের বেরুয়ান গ্রামে মুক্তিযোদ্ধারা ৯ জন রাজাকারকে হত্যা করে। প্রতিশোধ নেয়ার জন্য পাক হানাদার ও রাজাকার বাহিনী মিলে ৬ নভেম্বর সকালে মুক্তিযোদ্ধাদের খোঁজে বের হয়। এ সংবাদ পেয়ে মুক্তিযোদ্ধারা একত্রিত হয়ে পাক হানাদারদের প্রতিরোধের পরিকল্পনা নেয়।
শতাধীক মুক্তিযোদ্ধা একত্রিত হয়ে হানাদারদের গতিপথ বংশিপাড়া চন্দ্রাবর্তী নদীর পাশে ঘাঁটি গাড়ে। রাজাকার ও পাক হানাদাররা সামনা সামনি আসা মাত্রই মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে শুরু হয় ভয়াবহ যুদ্ধ। সেই যুদ্ধে হানাদারদের ক্যাপ্টেন তাহের ঘটনাস্থলেই মারা যায়। কয়েক ঘন্টা ব্যাপী সম্মুখ যুদ্ধে ঘটনাস্থলেই ১০ জন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন।
সেদিন সম্মুখ যুদ্ধে শহীদ হন আবুল কাশেম, আব্দুল খালেক, ইউনুছ আলী, নায়েব আলী, আব্দুর রশিদ, আব্দুল মালেক, শহিদুল ইসলাম, আব্দুস সাত্তার, মনছুর আলী, আব্দুর রাজ্জাক।
দিনটি উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের পক্ষ থেকে নানা কর্মসূচী হাতে নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে বংশিপাড়া স্মৃতি স্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ, আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিল।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: আকরাম আলী বলেন, বংশিপাড়া স্মৃতিস্তম্ভে সকাল ১০টায় আলোচনা সভা, মিলাদ মাহফিলসহ নানা কর্মসূচী পালিত হবে। মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্য, উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত থাকবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *