আটঘরিয়ায় তিনটি পয়েন্টে জুয়া খেলা জমজমাট : বাড়ছে চুরি

নিজস্ব প্রতিবেদক : পাবনার আটঘরিয়ায় আবারও জুয়া খেলা জমে উঠেছে। উপজেলার তিনটি পয়েন্টে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকার জুয়া খেলা চলছে বলে জানা গেছে। শুধু তাসের মাধ্যমেই নয় ফরের সাহায্যেও এই খেলা চলছে বলে এলাকার সাধারণ মানুষ অভিযোগ করছেন। এতে এলাকার উঠতি বয়সী যুবক থেকে কলেজগ্রামী ছাত্ররাও এই জুয়ার নেশায় আশক্ত হচ্ছে বলে জানা গেছে। আর এতে এলাকায় গরু চুরিসহ বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকল্যাপ বেড়ে গেছে। তবে পুলিশ বলেছে, জুয়া বন্ধে কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, প্রতিদিন রাতে ও দিনে আটঘরিয়া উপজেলার মাজপাড়া ইউনিয়নের কামালপুর, মাজপাড়া, চাঁদভা ইউনিয়নের হাসাইখালি গ্রামে জমজমাট ভাবে তাস ও ফরের সাহার্যে জুয়া খেলা চলছে। যেন দেখার কেউ নাই।

কামালপুর গ্রামের নাম প্রকাশ না করা সর্তে জনৈক ব্যক্তি বলেন, পুলিশি অভিযানের ফলে দীর্ঘদিন যাবত তাদের গ্রামে জুয়া খেলা বদ্ধ ছিলো। কিন্তু চলতি মাসে আবারও প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধার পর পর্যন্ত এই গ্রামে জুয়া খেলা চলছে। আর এতে এলাকার উঠতি বয়সী যুবক থেকে শুরু করে কলেজগ্রামী ছাত্ররাও এই নেশায় আশক্ত হয়ে নি:শ^ হয়ে পড়েছে অনেকেই।

চাঁদভা ইউনিয়নের হাসাইখালি গামের নাম প্রকাশ না করা সর্তে জনৈক ব্যক্তি অভিযোগ করে বলেন, বেশ ক’মাস জুয়া বদ্ধ ছিলো তাদের এলাকায় কিন্তু হঠাৎ করে আবারও জুয়া খেলা শুরু হয়েছে।

এই গ্রামে জনৈক বয়োবৃদ্ধ ব্যক্তি বলেন, হাসাইখালি গ্রামের প্রভাবশালী জুয়ারু আজিম ও কলাবাগন এলাকার বাচ্চুর নের্তৃত্বে প্রতিদিন ফরের সাহায্যে জুয়া চালিয়ে যাচ্ছেন। এতে এলাকায় চুরিসহ অসামাজিক কার্যকল্যাপ আবারও বেড়ে গেছে।

এ ব্যাপারে আটঘরিয়া থানার এএসআই রফিক উদ্দিন বলেন, জুয়া খেলার বিয়টি তাদের জানা নেই। তবে এমন অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

জানা গেছে, হঠাৎ করেই আটঘরিয়া উপজেলায় বিভিন্ন বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চুরি বেড়ে গেছে। গত এক মাসে এই উপজেলার বিভিন্ন বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে প্রায় ১০টি ছোট বড় চুরি সংঘঠিত হয়েছে বলে জানা গেছে।

তবে এলাকাবাসীর দাবী দ্রুত জুয়া বন্ধে কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া জুরুরী বলে মনে করছেন তারা।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *