আটঘরিয়ায় শিশু শিক্ষার্থীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে শারীরিক নির্যাতন ; প্রধান আসামী গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক : ইফটিজিং এর অভিযোগ এনে পাবনার আটঘরিয়ায় অনিক হোসেন নামের ১১ বছরের এক শিশু শিক্ষার্থীকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে নড়ে চড়ে বসে পুলিশ প্রশাসন। এ অভিযোগে কামাল হোসেন ভুঁইয়া নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, সোমবার দুপুরের দিকে আটঘরিয়া পৌরসভার উত্তরচক মহল্লার জাহানারা খাতুনের ৭ম শ্রেণিতে পড়–য়া শিশু অনিক হোসেন পাশ^বর্তী গ্রামের কামাল হোসেন ভুঁইয়া তার মেয়েকে ইফটিজিং এর অভিযোগ এনে অনিককে বাড়ি থেকে ডেকে তার নিজ বাড়ির উঠানে গাছের সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে শারিরীকভাবে ৩/৪ জন মিলে নির্যাতন করে। পরে এলাকাবাসীর হস্তক্ষেপে অনিককে উদ্ধার করে আটঘরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

ঘটনাটি স্থানীয়রা ভিডিও ও ছবি তুলে ফেসবুকে ছেড়ে দিলে বিষয়টি পুলিশ প্রশাসের নজরে আসে। পরে পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে কামাল হোসেন ভুঁইয়াকে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার আটঘরিয়া থানায় শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা হয়েছে।

অনিকের মা জাহানারা খাতুন বলেন, আমার ছেলেকে যে নির্যাতন করা হয়েছে তার বিচার চাই।

এদিকে এমন বর্বরিচিত ঘটনার স্বাস্থী দাবী করেছে এলাকাবাসী।

আটঘরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় মঙ্গলবার থানায় শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা হয়েছে। মামলার প্রধান আসামীকে গ্রেপ্তার করে আদালতে মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

আটঘরিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, গতকাল শিশুটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তার চিকিৎসা চলছে। এখন সে ভাল আছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *