আবারো ফিরে আসছে সেই জুটি

স্পোর্টস: একই সঙ্গে একই দিনে পাকিস্তানের ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছিলেন দেশটির দুই কিংবদন্তি মিসবাহ-উল হক ও ইউনুস খান। এই দুই জনের জুটি ছিল পাকিস্তান ক্রিকেটের স্মরণীয় এক ব্যাপার। সেই জুটি আবার ফিরে আসছে। কোচিং দলে মিসবাহর সঙ্গে যোগ দিচ্ছেন ইউনুস। ব্যাটিং কোচ হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার আগে ইউনুস বলেছেন, তিনি মিসবাহর সঙ্গে উইকেটের মতোই আরেকটা জুটি করার অপেক্ষায় আছেন। এক ভিডিও প্রেস কনফারেন্সে ইউনুস বলেছেন, তিনি আর মিসবাহ যেখান থেকে শেষ করেছিলেন, এখন সেখান থেকেই শুরু করতে চান।

ইউনুস বলেছেন, ‘মিসবাহ ও আমি একসঙ্গে ক্রিকেট ছেড়েছিলাম। যেটা সবচেয়ে আনন্দের ব্যাপার ছিল যে, ওয়েস্ট ইন্ডিজে প্রথম জয়ের ভেতর দিয়ে আমরা জিতে মাঠ ছেড়েছিলাম। সে আমার অধিনায়ক ছিল। আমি যেভাবে বোলারদের কানের কাছে কথা বলতাম, তাতে আমিও ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক ছিল মনে হতো। আমি যেখানে শেষ করেছিলাম, মেইন জয় নিয়েই শুরু করতে চাই।

আমি ক্রিকেট ক্যারিয়ারে আমার যারা সতীর্থ ছিলেন, তাদের সঙ্গে ড্রেসিংরুমে ফিরতে পেরে খুব আনন্দিত।’ ইউনুসের প্রধান কোচ মিসবাহ। এ ছাড়া বোলিং কোচ হিসেবে আছেন ওয়াকার ইউনুস। স্পিন কোচ হিসেবে যোগ দিচ্ছেন মুশতাক আহমেদ। এই কোচিং দল নিয়ে ইউনুস বলছিলেন, ‘আমি বোলিং কোচ ওয়াকার ইউনুসের অধিনায়কত্বে খেলেছি।

মিসবাহ তো আমার অধিনায়ক ছিলেনই। এ ছাড়া ২০০০-এর শুরুর দিকে আমি মুশতাক আহমেদের সঙ্গেও এক দলে খেলেছি। আমরা সবাই জানি, অতীত থেকে কী করে শিক্ষা নিতে হয় এবং সামনে এগিয়ে যেতে হয়। আমরা অতীতে যা হয়েছে, সেটাকে ভুলে যেতে চাই। অতীতকে বরং আমাদের সামনের অর্জনের শক্তি বানাতে চাই। আমি গর্বিত যে, মিসবাহ তার এই যাত্রায় আমাকে সঙ্গী হিসেবে পছন্দ করেছেন এবং কোচিং দলে নিয়েছেন।’ ইউনুস বলেছেন, তাকে খুব ভালো করে বোঝানো হয়েছে যে, এই ইংল্যান্ড সফরে ব্যাটিং কোচ হিসেবে তার দায়িত্ব কী।

তিনি নিজের কাজটা বুঝে নিয়েছেন বলেই বলছিলেন, ‘আমাকে ওয়াসিম খান খুব পেশাদারভাবে প্রস্তাব দিয়েছেন। আমি বলেছি, আমার অতীত অর্জন যা-ই হোক না কেন, আমি সামনে তাকাতে চাই। আমি বুঝতে চাই যে, আমার ভূমিকা কী। আমি পাকিস্তানের অধিনায়কত্ব স্বেচ্ছায় ছেড়ে দিয়েছিলাম। আমি ইজাজ বাটকে বলেছিলাম, ২০১১ বিশ্বকাপের জন্য আমাকে অধিনায়ক করা হোক। সেটা করা না হলে আমি নিজেই পদত্যাগ করেছিলাম।’

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *