ইরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা ট্রাম্পের

বিদেশ : ইরাকে মার্কিন ঘাঁটিতে হামলার জবাবে ইরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা জারির ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ইরান তার আচরণ পরিবর্তন না করা পর্যন্ত নতুন শক্তিশালী নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে যুক্তরাষ্ট্র। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা যায়।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে গত ৩ জানুয়ারি ইরাকের বাগদাদে বিমান হামলা চালিয়ে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ডের (আইআরজিসি) কুদস বাহিনীর কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যা করা হয়। এই হামলার ‘মারাত্মক প্রতিশোধ’ হিসেবে বুধবার সকালে ইরাকের মার্কিন বিমানঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় তেহরান।

হামলার পর ট্রাম্প দাবি করেন, ইরানি হামলায় কোনও মার্কিন সেনা হতাহত হয়নি। ক্ষয়ক্ষতিও কম হয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমাদের অনেক শক্তিশালী সেনাবাহিনী ও অস্ত্র আছে মানে এই না যে আমাদের তা ব্যবহার করতে হবে। আমরা তা ব্যবহার করতে চাই না। যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ও অর্থনৈতিক শক্তি আছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, হামলার জবাবের পথ খুঁজছেন তারা। তবে বিস্তারিত কিছু বলেননি তিনি।

ইরানের ওপর কি ধরনের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে তা নিয়েও স্পষ্ট করে কিছু বলেননি ট্রাম্প। মধ্যপ্রাচ্যে নিজেদের সক্রিয়তা বাড়ানোর জন্য ট্রাম্প ন্যাটোকে অনুরোধ করবে বলে জানা গেছে। হামলার পর দেওয়া প্রথম ভাষণে ইরানের ওই হামলার প্রতিশোধ নেওয়ারও কোনও হুমকি দেননি ট্রাম্প।

তিনি বলেন, ‘আমাদের সব সেনা নিরাপদে আছেন। তবে আমাদের সামরিক ঘাঁটির সামান্য ক্ষতি হয়েছে। আমাদের সেনারা যেকোনও পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত।’

তিনি আরও বলেন, ‘ইরান থেমে গেছে; যেটা সংশ্লিষ্ট সব পক্ষ ও বিশ্বের জন্য ভালো।’ মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, ‘ইরান যদি পারমাণবিক অস্ত্র তৈরির চেষ্টা বাতিল করার মাধ্যমে সন্ত্রাসের পথ ত্যাগ করে, তাহলে শান্তি স্থাপনেও আমি প্রস্তুত।’

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *