ঈশ্বরদী পৌর যুবদলের আহবায়ক কমিটি বাতিলের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনা: কেন্দ্রীয় যুবদল থেকে সদ্য ঘোষিত পাবনার ঈশ্বরদী পৌর যুবদলের আহবায়ক কমিটি বাতিল করে নতুন আহবায়ক কমিটি গঠনের দাবি জানিয়েছেন নেতাকর্মীরা। তাদের অভিযোগ, ত্যাগী ও হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ নেতাকর্মীদের বাদি দিয়ে এই আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করেছেন কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। সাতদিনের মধ্যে কমিটি বাতিল করে পুনরায় কমিটি গঠনেরও দাবি নেতাকর্মীদের।

বুধবার (০৫ মে) দুপুরে ঈশ্বরদীর বাবুপাড়ায় ব্রাদার্স ইউনিয়ন ক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ঘোষিত আহবায়ক কমিটির আহবায়ক জাকির হোসেন জুয়েল।

তিনি তার বক্তব্যে বলেন, গত ২ মে রাতে কেন্দ্রীয় যুবদলের দপ্তর সম্পাদক কামরুজ্জামান দুলাল স্বাক্ষরিত পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলা ও পৌর যুবদলের আহবায়ক কমিটি অনুমোদন করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। সেখানে ঈশ্বরদী পৌর যুবদলের কমিটিতে জাকির হোসেন জুয়েলকে আহবায়ক ও সাজেদুল ইসলাম জিতু (সঠিক নাম একেএম সাজেদুজ্জামান জিতু) কে সদস্য সচিব করা হয়।

একই রাতে আকস্মিকভাবে কেন্দ্রীয় যুবদলের দপ্তর সম্পাদক কামরুজ্জামান দুলাল স্বাক্ষরিত পাবনার ঈশ্বরদী পৌর যুবদলের আরেকটি আহবায়ক কমিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। সেখানে জাকির হোসেন জুয়েলকে আহবায়ক ও আলী জুবায়ের প্রতিককে সদস্য সচিব করা হয়। এর প্রেক্ষিতে ৩ মে পাবনা জেলা যুবদলের নেতৃবৃন্দ জাকির হোসেন জুয়েলকে আহবায়ক ও আলী জুবায়ের প্রতিককে সদস্য সচিব করে ঈশ্বরদী পৌর যুবদলের ৪২ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি অনুমোদন দেয়।

আহবায়ক জাকির হোসেন জুয়েল বলেন, এর মাধ্যমে ঈশ্বরদী পৌর যুবদলের কমিটি নিয়ে ধুম্রজালের সৃষ্টি হয়েছে। নেতাকর্মীদের অভিযোগ, কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা ও পাবনা জেলা বিএনপির আহবায়ক হাবিবুর রহমান হাবিব এই ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। তিনি ঈশ্বরদীর বিএনপির রাজনীতি নিয়ে একের পর এক ক্ষতি করে চলেছেন। তার কারণে পৌর যুবদলের আহবায়ক কমিটিতে ত্যাগী ও হামলা মামলায় ক্ষতিগ্রস্থ নেতাকর্মীদের ঠাঁই হয়নি। অথচ বিগত ১৩/১৪ বছর ধরে যারা দলীয় কোনো কর্মকান্ডে জড়িত নেই এমন ব্যক্তিদের পৌর যুবদলের আহবায়ক কমিটিতে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জাকির হোসেন জুয়েল বলেন, আগামী ৭ দিনের মধ্যে সদ্য ঘোষিত আহবায়ক কমিটি বিলুপ্ত করে আলোচনার মাধ্যমে ত্যাগী ও নির্যাতিত নেতাকর্মীদের সমন্বয়ে পৌর যুবদলের নতুন আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করতে হবে। তা না হলে পরবর্তীতে উপজেলা ও পৌর বিএনপিসহ সকল অঙ্গ এবং সহযোগি সংগঠনের দলীয় কোনো কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করবে না নেতাকর্মীরা। সেইসাথে সদ্য ঘোষিত আহবায়ক কমিটি বিলুপ্ত করে ৭ দিনের মধ্যে নতুন আহবায়ক কমিটি গঠন না করলে পৌর যুবদলের আহবায়ক কমিটি থেকে অধিকাংশ নেতৃবৃন্দ পদত্যাগ করতে বাধ্য হবে।

এ বিষয়ে পাবনা জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস আহমেদ হিমেল রানা বলেন, ঈশ্বরদী পৌর যুবদলের আহবায়ক কমিটি গঠনের জন্য একাধিক নাম প্রস্তাবনা কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছিল। কেন্দ্রীয় দপ্তর থেকে ভুলবশত প্রথমে একটি কমিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছিল। পরবর্তীতে ভুল বুঝতে পেরে দ্রুত সেটি সরিয়ে নিয়ে সঠিক আহবায়ক কমিটি প্রকাশ করা হয়। এটি নিয়ে বিভ্রান্তির কিছু নেই। সবাইকে নিয়ে দলকে সুসংগঠিত করতে কাজ করে যাওয়ার জন্য তিনি সবাইকে আহবান জানান।

অভিযোগের বিষয়ে পাবনা জেলা বিএনপির আহবায়ক হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, কেন্দ্রীয় যুবদল ও জেলা যুবদল কমিটি অনুমোদন দিয়েছে। এখানে আমার কোন কিছু করার নেই। ভুল বুঝে দলের একটি অংশ আমাকে জড়িয়ে মিথ্যা রটাচ্ছে। তিনি বলেন, কেন্দ্রে দুইটি পৃথক প্যানেল জমা দেয়া ছিল। সেখানে উভয় প্যানেল থেকে সমন্বয় করেই কমিটি অনুমোদন দিয়েছে। প্রথম অবস্থায় যে কমিটি অনুমোদন দিয়ে ফেসবুকে ছেড়ে দিয়েছিল সেটি ছিল ভুল। দ্বিতীয়বারে সঠিক কমিটি অনুমোদন দেয়ায় এই বিভ্রান্তি দেখা দিয়েছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *