উন্নয়ন কর্মসুচী ওয়েব পোর্টালে প্রকাশ করতে হবে -জেলা প্রশাসক

রফিকুল ইসলাম সুইট : পাবনা জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ বলেছেন- করোনা মহামরীসহ বিভিন্ন সমস্যা মোকাবেলা করে সরকার ব্যাপক উন্নয়ন মুলক কাজ করে যাচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশ দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। সরকারের এসব উন্নয়ন তথ্য সবাইকে জানানো প্রয়োজন। তথ্য প্রবাহের যুগে প্রত্যেকটি অফিসে ওয়েব পোর্টাল রয়েছে। ওয়েব পোর্টালের মাধ্যমে সংশ্লিষ্টরা এবং জনগণ প্রয়োজনীয় তথ্য পাবে। সরকারের উন্নয়ন কর্মসুচী ওয়েব পোর্টালে প্রকাশ করতে হবে।

রবিবার সকালে পাবনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে হতে যুম সফটওয়ারের মাধ্যমে জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির মাসিক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সভাসুত্রে জানাযায়- এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী মোকলেসুর রহমান জানান- ২০১৯-২০ অর্থ বছরে ১৯২ টি স্কিমে ২৪৩ কোটি টাকার বরাদ্দ হয়েছে তার মধ্যে ২২১ কোটি টাকার কাজ সম্পন্ন হয়েছে। কাজের অগ্রগতি শতকরা ৯১ ভাগ। এ অর্থ বছরে এডিপির সম্ভাব্য লক্ষ্যমাত্রা ২৭০.০০কোটি টাকা।সমাজ সেবা কর্মকর্তা রাশেদুল কবীর জানান জেলায় বাৎসরিক ১ লক্ষ ৩২ হাজার ভাতাভোগীকে ১ শ ৩২ কোটি টাকা দেয়া হচ্ছে। ভাতাভোগীদের তালিকা যাচাইবাছাই করা হচ্ছে। সভায় আরো জানাযায়-বেড়া উপজেলায় শতভাগ ভোতাভোগীকে ভাতা দেয়ার কার্যক্রম চলছে। পাবনায় সবজি আবাদ বৃদ্ধি পাচ্ছে। ৭ হাজার ৫০০ জনকে সবজি বিজ দেয়া হবে। আগামী ২৩ তারিখে পাবনা-আটঘরিয়া নির্বাচনী এলাকায় নির্বাচনের তারিখ ঘোষনা করা হবে। পুলিশ সার্বিক সহযোগীতার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। মাকস ব্যবহারের প্রতি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী আতিয়ুর রহমান বলেন- বর্তমানে ডেঙ্গু বৃদ্ধিও সময়। সকলে সচেতন হয়ে নিজের জায়গায় পরিষ্কার রাখতে হবে।

পাবনা জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ এর সভাপতিত্বে সভায় এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী আতিয়ুর রহমান, অতিরিক্ত পুুলিশ সুপার নাসিমা আকতার, সিভিল সার্জন ডা. মেহেদী হাসান, পাবনা সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি আব্দুল মতীন খান, অতিরিক্ত জেলা প্রসাশক শাহেদ পারভেজ, আফরোজা আকতার, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আহসান হাবিব, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মনসুর আলম, জেলা সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মো. ফরহাদ হোেসেন, পাবনা প্রেস ক্লাব সভাপতি ফজলুর রহমান, বাসস ও ভোরের কাগজ প্রতিনিধি সহকারী অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম সুইট, জেলা কালচারাল অফিসার মারুফা মঞ্জুরী খান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়নাল আবেদিন, অধ্যক্ষ ইঞ্জি. জমিদার রহমান প্রমুখ ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *