এবার ব্রাউজারভিত্তিক স্ট্রিমিং গেম সেবা নিয়ে আসছে গুগল

আইটি: চলতি বছরই ব্রাউজারভিত্তিক ভিডিও গেইম স্ট্রিমিং সেবা আনবে গুগল। মঙ্গলবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্যান ফ্রান্সিসকোর গেইম ডেভেলপারস কনফারেন্স-এ ‘স্টেডিয়া’ নামের এই সেবার ঘোষণা দেয় সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটি।
নতুন এই স্ট্রিমিং গেইম সেবার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের ক্লাউড প্রযুক্তি এবং বৈশ্বিক ডেটা সেন্টার নেটওয়ার্কের পরিধি বাড়ানোর প্রয়াশ করছে গুগল।
বার্তাসংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এই স্ট্রিমিং প্রযুক্তির মাধ্যমে ডিভাইসে কনটেন্ট ডাউনলোডের জন্য অপেক্ষা না করেই ইন্টারনেট ব্রাউজার বা ইউটিউবে গেইম খেলতে পারবেন গ্রাহক। এতে ইউটিউবে ভিডিও দেখার মতোই সহজে গেইম খেলা যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
গেইম স্ট্রিমিং সেবাটি কবে নাগাদ চালু হবে বা এর মূল্য কেমন হবে তা নিয়ে বিস্তারিত কোনো তথ্য জানায়নি গুগল। এই খাতে শীর্ষ গেইম নির্মাতা এবং অ্যামাজন ও মাইক্রোসফটের মতো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিষ্ঠানগুলোর জোরালো প্রতিযোগিতার মুখোমুখিও রয়েছে সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটি।
মঙ্গলবার নতুন সেবার ঘোষণা দেওয়ার সময় গুগলের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফিল হ্যারিসন বলেন, “স্টেডিয়া এলে গেইম নিয়ে অপেক্ষা অতীতের বিষয় হবে।” চলতি সপ্তাহেই ভিডিও গেইম খাতের ২৫ হাজার ব্যক্তিকে একত্র করবে এটি।
গ্রাহক বা গেইম নির্মাতাদের জন্য এই প্রযুক্তির মূল্য কেমন হবে বা কী ধরনের গেইমের সমর্থন এতে পাওয়া যাবে তা জানায়নি গুগল।
অনুষ্ঠানে ডুম এবং অ্যাসাসিন’স ক্রিড গেইমের ডেমো দেখিয়েছে মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি। এই সেবার জন্য গুগল নিজেই কিছু গেইম বানাবে বলে জানানো হয়েছে।
নতুন এই স্ট্রিমিং প্রযুক্তির কারণে গেইম নির্মাতাদেরকে গুগলের ক্লাউড কম্পিউটিং এবং ডেটা স্টোরেজ সেবার আওতায় আনার আরেকটি পথ পাবে প্রতিষ্ঠানটি। এটি আয়ের নতুন পথ খুলে দেবে গুগলের জন্য যা গেইম বিক্রির চেয়েও বেশি অর্থ সমাগম ঘটাবে।
গুগলের নতুন গেইম স্ট্রিমিং সেবা নিয়ে বিশ্লেষকদের প্রশ্ন– শীর্ষস্থানীয় গেইম নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো ডিস্কের মাধ্যমে গেইম বিক্রির লাভজনক ব্যবসা ছেড়ে এখনই এই প্ল্যাটফর্মে আসতে প্রস্তুত কিনা? গেইম নির্মাতারা নিজস্ব স্ট্রিমিং সেবাও চালু করতে পারে।
এনভিডিয়া, সনি এবং মাইক্রোসফটের মতো প্রতিষ্ঠানগুলোও গেইম স্ট্রিমিংয়ের মাধ্যমে সেবা খাতের আয় বাড়ানোর চেষ্টা করছে।
গুগলের স্টেডিয়া দলের অনেকেই গেইম নির্মাতা ইলেকট্রনিক আর্টস (ইএ) বা মাইক্রোসফটের গেইমিং ইউনিটের সাবেক কর্মী বলেও জানানো হয়েছে প্রতিবেদনে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *