করোনায় বিশ্বে মৃত্যু ১ লাখ ৯৫ হাজার ছাড়াল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৯৫ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হওয়া রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮ লাখের কাছাকাছি।

জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির সেন্টার ফর সিস্টেম সায়েন্সেস অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের (সিএসএসই) তথ্য অনুযায়ী, শনিবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৯৫ হাজার ৯২০ জনের। বিশ্বে এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭ লাখ ৯০ হাজার ৯৮৬ জনে। আর ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৭ লাখ ৮১ হাজার ৩৮২ জন।

সিএসএসই’র তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে, ৫১ হাজার ১৭ জন। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যাও বিশ্বে সর্বোচ্চ ৮ লাখ ৯০ হাজার ৫২৪ জন। মৃত্যুর সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের পরেই রয়েছে ইউরোপের দেশ ইতালি।

করোনার প্রাদুর্ভাবে ইউরোপের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশটিতে এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ২৫ হাজার ৯৬৯ জন। আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৯২ হাজার ৯৯৪ জন। তৃতীয় অবস্থানে থাকা স্পেনে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ২২ হাজার ৫২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। স্পেনে মৃতের সংখ্যা ইতালির চেয়ে কম হলেও আক্রান্তের সংখ্যা বেশি।

স্পেনে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ১৯ হাজার ৭৬৪ জন। ইউরোপেরই অন্যান্য দেশগুলোর মধ্যে ফ্রান্সে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২২ হাজার ২৭৮ জন। আর আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৫৯ হাজার ৪৯৫ জন। এ ছাড়া যুক্তরাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৯ হাজার ৫৬৬ জন। আর মোট আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৪৪ হাজার ৬৩৫ জন।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়া নভেল করোনাভাইরাস এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৮৫টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। গত ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। যে চীন থেকে করোনাভাইরাসের উৎপত্তি সেই চীনে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ৬৩৬ জন।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে ৮৩ হাজার ৮৮৫ জন। বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে ৪ হাজার ৬৮৯ হন। এদের মধ্যে ১৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১১২ জন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *