করোনা ভাইরাসে পর্তুগালের প্রেসিডেন্ট

ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের প্রকোপের মধ্যে রাষ্ট্রীয় সব ধরনের কাজ থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছেন পর্তুগালের প্রেসিডেন্ট রিবেলো ডি সুজা। তার কার্যালয় জানিয়েছে, রিবেলোর সঙ্গে সম্প্রতি দেখা হওয়া এক শিক্ষার্থীর শরীরে করোনা শনাক্ত হওয়ার পর সেচ্ছায় নিজের বাসভবনেই কোয়ারেন্টাইনে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

ইতোমধ্যেই দুনিয়াজুড়ে শতাধিক দেশ ও অঞ্চলের ১ লাখ ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। মৃতের সংখ্যা ৩ হাজার ৮শ’ ছাড়িয়েছে। চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬২ হাজার ৩শ জনেরও বেশি মানুষ। পর্তুগালে ৩০ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হলেও এখনও সেখানে কোনও প্রাণহানি হয়নি।

প্রেসিডেন্ট কার্যালয় জানিয়েছে, গত ৩ মার্চ পর্তুগালের উত্তরাঞ্চলীয় একটি স্কুলের শিক্ষার্থীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মার্সেলো রিবেলো। সে সময় তিনি ছাত্রছাত্রীদের পাশাপাশি দাঁড়িয়ে ছবিও তোলেন।

গত ৭ মার্চ ওই শিক্ষার্থীদের একজনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপর দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টাইনে থাকার সিদ্ধান্ত নেন প্রেসিডেন্ট। এ ভাইরাসে বিশ্বব্যাপী আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ার পর গত রোববার থেকে দুই সপ্তাহের জন্য ‘নির্জনে’ থাকছেন ৭১ বছর বয়সী ওই প্রেসিডেন্ট।

রাষ্ট্রীয় বিবৃতিতে আরও জানানো হয়েছে, প্রেসিডেন্টের শরীরে করোনা আক্রান্তের কোনও লক্ষণ দেখা যায়নি। তবে দুই সপ্তাহের কোয়ারেন্টাইনে থাকার সময়ে তিনি কোনও ধরনের প্রকাশ্য কার্যক্রমে অংশ নেবেন না।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়ে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস। একপর্যায়ে এ ভাইরাস নিয়ে বিশ্বজুড়ে জরুরি স্বাস্থ্য পরিস্থিতি (হেলথ ইমার্জেন্সি) ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *