কলেজ মাঠে গরুর হাট বন্ধ করলেন ইউএন

পিপ (পাবনা) : শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে পাবনার সাঁথিয়া সরকারি ডিগ্রি কলেজ মাঠে গরুর হাট বসানো বন্ধ করলেন সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও কলেজের গভর্নিংবডির সভাপতি এসএম জামাল আহমেদ।

বুধবার কলেজ মাঠের চারিদিকে বাঁশের বেড়া দিয়ে দেওয়া হয়। কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী কলেজ মাঠে গরুর হাট বসানো বন্ধের দাবি জানিয়ে ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পর তিনি এ পদক্ষেপ নেন।

অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘২১ জুন সোমবার সাঁথিয়া সরকারি কলেজ প্রাঙ্গনে গরুর হাট বসানোর জন্য কিছু ব্যক্তি বাঁশ, খুঁটি বসায়। গরুর হাট বসালে কলেজের অ্যাসাইনমেন্টের কার্যক্রম ও অনলাইন পাঠদান কাজে চরম প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হবে এবং প্রাঙ্গন নোংরা ও অপরিচ্ছন্ন হবে। আমি আমার সহকর্মীদের সাথে পরামর্শ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়ে ইউএনও বরাবর লিখিত আভযোগ দিয়েছি।’
এ বিষয়ে সাঁথিয়া সরকারি কলেজের গভর্নিংবডির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম জামাল আহমেদ সমকালকে বলেন, ‘কলেজের অধ্যক্ষ লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পর গরুর হাট বসানো বন্ধ করেছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গরুর হাট বসাতে দেয়া হবে না। আমি বিষয়টি সম্পর্কে অবগত হওয়ার পরপরই হাটের ইজাদারকে ডেকে এনে গরুর হাট বসাতে নিষেধ করে দিয়েছি। এর পরেও বসানোর চেষ্টা হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
এ ব্যাপারে হাটের ইজারাদার আলমগীর হোসেন জানান, কলেজ মাঠে পশুর হাট বসানোর উদ্যোগ নিয়েছিলেন তিনি। তবে ইউএনও নিষেধ করে দেওয়ায় তিনি আর কলেজ মাঠে গরুর হাট বসাবেন না।

উল্লেখ্য, কলেজ মাঠে গরুর হাট বসানোর প্রস্তুতির ছবি ‘প্রদীপ্ত সাঁথিয়া’ এবং ‘শিক্ষা ও শিক্ষকসমাজ’ ফেসবুকের গ্রুপ পেজে পোস্ট হওয়ার পর সামাজিক মাধ্যমে সমালোচনা শুরু হয়। এ কাজের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে কলেজ মাঠে গরুর হাট বসানো বন্ধের জোর দাবি জানান অনেকেই।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *