খালি পেটে এই ৫ খাবার খেলে কমবে ওজন

লাইফস্টাইল: ওজন কমানো সহজ কাজ নয়। সঠিক খাবার খাওয়া থেকে শুরু করে নিয়মিত শরীরচর্চা করা- ওজন কমানোর জন্য এর পেছনে সময় ব্যয় করা ও আপনার আন্তরিক প্রচেষ্টা থাকা একান্ত প্রয়োজন। তবে কিছু সুপারফুড রয়েছে যা ওজন কমানোর প্রক্রিয়াটি ত্বরান্বিত করে এবং শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থও সরিয়ে দেয়। এমনটাই প্রকাশ করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া। চলুন জেনে নেয়া যাক কী সেই খাবারগুলো-

ঘি এবং লেবু দিয়ে গরম পানি
পেরিস্টালিসিস উন্নত করতে একগ্লাস হালকা গরম পানিতে খানিকটা লেবু বা ঘি দিয়ে পান করুন যা শরীরের বর্জ্য বের করে দিতে কার্যকরী। হজমে নমনীয়তা এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে হালকা গরম পানির সাথে ঘি মিশিয়ে পান করতে পারেন।

ডাইজেস্টিভ টি
আজকাল বাজারে নানা রকমের আয়ুর্বেদিক চা পাওয়া যায় তবে আপনি নিজের তৈরি করতে পারলে সবচেয়ে ভালো। ১ চা চামচ জিরা, এক চা চামচ মৌরি, ১ চা চামচ ধনিয়া এবং ১ টি এলাচ নিন। সব উপাদান আধা লিটার পানিতে সেদ্ধ করুন, যতক্ষণ না পানি পরিমাণে অর্ধেক হয়। বদহজম, পেটে ফোলাভাব এবং ওজন কমাতে খালি পেটে এই চা পান করুন।

মেটাবলিজম টি
দারুচিনি, এলাচ, লবঙ্গ, কুচি করা আদা, গোলমরিচ, হলুদ এবং স্টার অ্যানাইস দিয়ে তৈরি চা দিয়ে দিনের শুরুটা করতে পারেন। এই সমস্ত উপাদান আধা লিটার পানিতে সেদ্ধ করুন এবং অর্ধেকে নামান। স্বাদের জন্য অর্ধেকটা লেবুর রস এবং নারিকেলের দুধ যোগ করতে পারেন। এই চা শরীরের তাপ এবং বিপাক উন্নত করতে সাহায্য করে, এভাবে ওজন হ্রাসকে সহায়তা করে।

সেলারির জুস
অন্ত্রে চাপ এড়াতে কাঁচা ফল এবং রান্না করা বা স্টিমযুক্ত শাকসবজি খান। ফল, শাকসবজি, দুধ এবং দই দিয়ে স্মুদি তৈরি করে পান করতে যাবেন না যেন! কারণ এমন সংমিশ্রণ পান করলে শরীরে টক্সিন জমে থাকতে পারে। এর বদলে ওজন কমাতে এক চিমটি পিংক সল্ট দিয়ে সেলারির জুস পান করুন খালি পেটে।

কাঁচা ফল
ভেষজ চা পান করার পরে কাঁচা ফল খেতে পারেন। সবুজ আপেল, লাল আপেল, ক্র্যানবেরি, ব্লুবেরি, চেরি, স্ট্রবেরি, ব্ল্যাকবেরি, আনারস, আমলকি, আধা পাকা কলা এবং ডালিম জাতীয় ফল বেছে নিন। এই ফলগুলো শরীরে পানির ধারণক্ষমতা হ্রাস করে এবং আপনার ত্বকে টিস্যু ও কোলাজেন শক্ত করে এবং ওজন হ্রাসে সহায়তা করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *