খোলামেলা হতে আপত্তি নেই ঋতাভরীর

বিনোদন: ভারতের জনপ্রিয় টেলিভিশন নাটক ‘ওগো বধূ সুন্দরী’। মাতৃহারা মেয়ে ললিতাকে নিয়ে গড়ে উঠে এর কাহিনি। বিয়ের পর ললিতা বাঙালি বধূ রূপে যৌথ পরিবারে এসে পড়ে। তারপর শুরু হয় নিজের সঙ্গে নিজের লড়াই। এই ললিতা চরিত্রে অভিনয় করে দারুণ দর্শকপ্রিয়তা লাভ করেন অভিনেত্রী ঋতাভরী চক্রবর্তী। পর্দার বাঙালি বধূ ললিতা ব্যক্তিগত জীবনে খোলামেলা পোশাকে দারুণ স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন! তার সোশ্যাল মিডিয়ায় ঢুঁ মারলে তার প্রতিচ্ছবি দেখা যায়। সোমবার (১৪ জুন) দুপুরে একটি ভিডিও পোস্ট করেন ঋতাভরী। তাতে দেখা যায়, কালো রঙের শার্ট পরেছেন, তার বক্ষ বিভাজিকা স্পষ্ট। আলো আঁধারির এই ভিডিও এখন টক অব দ্য টাউন বলা যেতে পারে! ইনস্টাগ্রামে দারুণ সরব ঋতাভরী। বিভিন্ন সময়ে নানা সাহসী ছবি পোস্ট করেছেন তিনি। আসলে ঋতাভরী এতটাই বডি কনফিডেন্ট যে, খোলামেলা পোশাকে তার কোনো দিনই কোনো দ্বিধা ছিল না। ঠিক যেমন মাসের শুরুতেই একটি সাদা-কালো ছবি পোস্ট করেছিলেন নায়িকা। তাতে দেখা যায়, এলোমেলো বিছানায় শুধু অন্তর্বাস পরে ক্যামেরার দিক পিঠ ফিরিয়ে বসে আছেন তিনি। তার টাইমলাইনে আরো পেছনে গেলে দেখা যায়, স্পেনের ইবিজায় কাটানো ছুটির একটি ছবি পোস্ট করেছেন এই নায়িকা। শহরের ব্যাকড্রপে, ব্যালকনিতে দাঁড়ানো এই ছবিতে ঋতাভরী গ্ল্যামারাস বিকিনি পরে আছেন। বিউটি উইথ ব্রেনস বলতে যা বোঝায় ঋতাভরী ঠিক তাই! ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ইউনির্ভাসিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ায় ভর্তি হন ঋতাভরী। কাজের ব্যস্ততার কারণে তখন বিদেশি পাড়ি জমাতে পারেননি। গত বছর শুরু হয় মহামারি করোনা সংকট। তখন একমাত্র ভরসা হয় ভার্চুয়াল ক্লাস। সর্বশেষ শিক্ষকদের পরামর্শে কোর্স শেষ করার সিদ্ধান্ত নেন। সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী সম্প্রতি স্নাতক সম্পন্ন করেছেন এই অভিনেত্রী। ‘ওগো বধূ সুন্দরী’ ধারাবাহিকের মাধ্যমে টেলিভিশনে আত্মপ্রকাশ করেন ঋতাভরী। ২০১১ সালে ‘তোমার সঙ্গে প্রাণের খেলা’ সিনেমার মাধ্যমে বড় পর্দায় পা রাখেন। যদিও চলচ্চিত্রটি মুক্তি পায়নি। ২০১২ সালে মুক্তি পায় তার অভিনীত প্রথম সিনেমা ‘তবু বসন্ত’। ঋতাভরী অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র হলোÑ‘ চতুষ্কোণ’, ‘বারুদ’, ‘পরী’, ‘শেষ থেকে শুরু’ প্রভৃতি।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *