গুলিতে কৃষ্ণাঙ্গের মৃত্যুর পর আটলান্টা পুলিশ প্রধানের পদত্যাগ

বিদেশ : যুক্তরাষ্ট্রের আটলান্টায় আফ্রো-আমেরিকান কৃষ্ণাঙ্গ এক যুবক পুলিশের গুলিতে নিহত হওয়ার পর শহরটির পুলিশ প্রধান পদত্যাগ করেছেন। শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে আটলান্টায় পুলিশের এক কর্মকর্তার সঙ্গে ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে গুলিতে প্রাণ যায় রেইশার্ড ব্রুকস নামের ওই কৃষ্ণাঙ্গের। আটলান্টার মেয়র কেইশা ল্যান্স বটমস বলেছেন, পুলিশ প্রধান এরিকা শিল্ডস তার পদত্যাগপত্র হস্তান্তর করেছেন।

পুলিশের গুলিতে ব্রুকসের মৃত্যুর পর বিচারের দাবিতে আটলান্টায় শত শত মানুষ বিক্ষোভ করেছেন। শনিবার সন্ধ্যার দিকে আটলান্টার ইন্টারস্টেট-৭৫ এলাকার একটি প্রধান মহাসড়ক বন্ধ করে দেয় বিক্ষোভকারীরা। সেখানকার ওয়েন্ডি রেস্টুরেন্টের বাইরে পুলিশের গুলিতে মারা যান ব্রুকস। এই রেস্টুরেন্টটি জ¦ালিয়ে দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা।

পুলিশের নিপীড়নে জর্জ ফ্লয়েড নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ যুবকের মৃত্যু ঘিরে গত তিন সপ্তাহ ধরে যুক্তরাষ্ট্রে টানা বিক্ষোভ করে আসছেন হাজার হাজার মানুষ। দেশটির প্রত্যেকটি অঙ্গরাজ্যে ছড়িয়ে পড়া এই বিক্ষোভ থেকে শত শত মানুষকে গ্রেফতার করা হলেও তা দমেনি। এরিকা শিল্ডস ২০১৬ সালের ডিসেম্বর থেকে আটলান্টার পুলিশ প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

আটলান্টা পুলিশ বিভাগে গত ২০ বছর ধরে বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। আটলান্টার মেয়র বলেছেন, পুলিশ প্রধানের পদ ছেড়ে দেয়ায় এরিকা শিল্ড অন্য দায়িত্ব পালন করবেন। জর্জিয়ার তদন্ত ব্যুরো বলেছে, ওয়েন্ডির রেস্টুরেন্টের সামনে অপেক্ষা করার সময় গাড়িতে ঘুমিয়ে পড়েছিলেন ব্রুকস। সেখানে পুলিশ পৌঁছে তার মাদক পরীক্ষা করেন।

এ সময় ব্রুকস মাদক সেবন করেছেন বলে প্রমাণিত হয়। পরে গাড়ি থেকে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশের গুলিতে মারা যান এই কৃষ্ণাঙ্গ যুবক। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সব পুলিশ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করার আহ্বান জানিয়েছেন আটলান্টার মেয়র বটমস।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *