চাঁদা চেয়ে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার জরুরী বিজ্ঞপ্তি!

পাবনা প্রতিনিধি : দপ্তরের মাসিক সমন্বয় কমিটির মিটিংয়ের ব্যয় নির্বাহ মেটাতে সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছে চাঁদা নির্ধারণ করে জরুরী বিজ্ঞপ্তি জারী করার অবিযোগ উঠেছে পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোছাঃ হালিমা খাতুনের বিরুদ্ধে।

জানা যায়, গত ৬ নভেম্বর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোছাঃ হালিমা খাতুন স্বাক্ষরিত এক পত্রে আদেশ জারী করা হয়।

জরুরী বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, নভেম্বর/২০২১ এর মাসিক সমন্বয় কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হবে। ওই সভায় উপরোক্ত দপ্তরের সকল কর্মকর্তা -কর্মচারীদের উপস্থিতি নিশ্চিত এবং বাধ্যতামূলক উপস্থিতির আদেশ জারী করা হয়। একই সাথে ইস্যু তারিখ থেকে ৫ দিনের মধ্যে প্রথম শ্রেনি থেকে চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে  এক হাজার থেকে চারশত টাকা পর্যন্ত চাঁদা নির্ধারন করে আরমান হোসেন নামের জনৈক কর্মচারীর নিকট জমা দেয়ার নির্দেশও প্রদান করা হয়।

সংশ্লিষ্ট বিষয়ে একাধিক বার একাধিক মুঠোফোন নাম্বার থেকে তাকে ফোন ও ক্ষুদে বার্তা দেয়া হলেও  উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোছাঃ হালিমা খাতুন কোন সাড়া দেননি।

এ বিষয়ে পাবনার সিভিল সার্জন ডা. মনিসর চৌধুরী বলেন, মাসিক মিটিংয়ের ব্যয় নির্বাহ সরকারি খরচ ও দপ্তর প্রধানের বিষয়। এখানে নোটিশ করে চাঁদা নির্ধারন করার কোন সুযোগ নেই। তিনি বলেন, আমি এ ধরনের কোন অভিযোগ পাইনি। বিষয়টি জেনে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *