চাটমোহরে তিন মাস ধরে ভ্যান চালক নিখোঁজ ; পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক : গত ১৩ মার্চ দিবাগত রাতে পাবনার চাটমোহর উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়নের জবেরপুর গ্রামের আফসার আলীর ছেলে ভ্যান চালক আব্দুস সালামকে স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি একটি শালিসের কথা বলে ডেকে নেওয়ার পরে আজ পর্যন্ত তার কোন সন্ধান পায়নি পরিবার। নিখোঁজের পরের দিন ১৪ মার্চ সালামের পিতা চাটমোহর থানায় হাজির হয়ে ছেলের সন্ধান চেয়ে একটি সাধারন জিডিও করেছেন। তবে পুলিশ নিখোঁজ সালামের কোন সন্ধান করছেনা এবং সে আত্মগোপনে আছে এমন কথাই পরিবারকে বারবার বলছে বলে অভিযোগ পরিবারের।

সোমবার বেলা ১১ টায় জবেরপুর নিজ বাসভবনে পরিবারের পক্ষ থেকে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, নিখোঁজ সালামের স্ত্রী রুমা খাতুন।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গত ১৩ মার্চ রাতে একই এলাকার ইন্তাজ আলীর ছেলে হেলাল উদ্দিন, বেলাল উদ্দিন, জাহের আলীর ছেলে শফিকুল ইসলাম সহ কয়েকজন অপরিচিত ব্যক্তি আমাদের বাড়ি থেকে সালামকে ডেকে নিয়ে যায়। যাওয়ার সময় তারা বলে শফিকুলের বাড়িতে ভ্যান বিক্রির বিষয়ে একটি শালিস আছে। এরপর রাত অনেক হলেও সে বাড়িতে না ফিরলে আমরা সালামের সন্ধান করতে থাকি। এর কিছু সময় পরে আমাদের এক নিকট আত্মীয় আশরাফুল ইসলাম এসে জানায়, তাকে তারা মারপিট করে তাড়িয়ে দিয়েছে আর সালামকে আটকিয়ে রেখেছে। তখন আমরা সেই ঘটনাস্থলে গিয়ে সালামকে আর পাইনি।

লিখিত বক্তেব্যে আরো বলা হয়, ছেলের সন্ধান চেয়ে কয়েকবার থানায় গিয়েছি, চেয়ারম্যানের কাছে গিয়েছি, স্থানীয় অনেক গন্যমান্যদের কাছে গিয়েছি কেউ কথা শুনেনা। পুলিশ বলে সালাম আত্মগোপনে আছে তার সন্ধান আপনারা ভাল জানেন। বাড়িতে আসতে বলুন। এছাড়া নিকট আত্মীয় আশরাফুল সালামের সন্ধান করে দেওয়ার কথা বলে অনেক টাকা আমাদের নিকট থেকে নিয়েছে। তার আচরনও আমাদের সন্দেহ মনে হয়। আমরা আমাদের সন্তান সালামের সন্ধান চাই। যারা তাকে ডেকে নিয়ে গিয়ে নিখোঁজ করে দিলো তাদের বিচার চাই।

ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম বলেন, নিখোঁজ সালামের সন্ধান পেতে পুলিশ তৎপর আছে। তিন মাস আগে থানায় জিডি গ্রহন করার পরে আশপাশের সকল থানায় তার ছবি সহ ম্যাসেজ পাঠানো হয়েছে। সে কোন বিশেষ কারনে নিজেকে আত্মগোপন করে রেখেছে এবং তার পরিবারের সাথেও যোগাযোগ হতে পারে বলে আমরা ধারনা করছি।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *