চাটমোহরে বাড়িঘর দখল করে পরিবারের সদ্যদের গ্রাম ছাড়া করার অভিযোগ

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনার চাটমোহরে মারপিট করে জোর পূর্বক এক পরিবারের সদস্যদের বাড়ি থেকে বিতারিত করে অবৈর্ধভাবে ঘরবাড়ি, জমি ও ঘরের আসববাবপত্র দখল করে গ্রাম ছাড়া করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এতে ৪ সদস্যদের ঐ পরিবারের সদস্যরা বিচারের দাবীতে মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘরছে। ঘটনাটি ঘটেছে, উপজেলার ফৈলজানা  গ্রামে। এ ঘটনায় শনিবার চাটমোহর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
অভিযোগের ছায়ালিপি হতে জানা গেছে, ফৈলজানা গ্রামের মাসুদ আলী, স্ত্রী ফাতেমা খাতুনসহ তাদের দুই সন্তান নিয়ে ভালো ভাবেই তাদের সংসার চলছি। কিন্তু হঠাৎ গত ৩ এপ্রিল একই এলাকার প্রভাবশালী আব্দুস সাত্তারের ছেলে লোকমান হোসেন গংয়েরা অবৈর্ধভাবে তার বাড়িতে ঢুকে পরিবারের সদস্যদের মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়ে বাড়ি, সম্পত্তিসহ ঘরে থাকায় আসবাবপত্র দখল করে নিয়ে ঐ বাড়িতে বসবাস শুরু করেছেন।
অভিযোগকারী ফাতেমা খাতুন বলেন, ঘটনার পর এলাকাবাসীকে অভিযোগ করেও কোন বিচার না পেয়ে নিরুপায় হয়ে গত শনিবার চাটমোহর থানায় লোকমানসহ ৭ জনের নামে একটি অভিযোগ দায়ের করেছি।
ফৈলজানা গ্রামের শ্রী ভোজেন, হাসান বলেন, একটি বাড়ি থেকে জোর করে পরিবারের সদস্যদের বের করে দিয়ে দখল নেওয়া ঠিক হয়নি। তবে রোববার থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে বিষয়টির সত্যতা পায়।
নাম প্রকাশ না করা সর্তে গ্রামের বেশ কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, ঘটনার দিন তারা দর্শকের ভুমিকা পালন করা ছাড়া তাদের কিছুই করার ছিলো না। কারণ তারা এলাকার প্রভাবশালী। তবে এই বাড়ির মালিক মাসুদ আলীর কাছে লোকমান টাকা পায়। আর এই টাকা পাওয়ার কারণেই তার বাড়ি দখল করে নিয়ে বসবাস শুরু করেছেন। তারা আরো বলেন, পরিবারের সদস্যদের বাড়ি থেকে বিতারিত করে দখলে নেওয়া ঠিক হয়নি। দোষিদের আইননের আওতায় আনা প্রয়োজন বলে মরে করেন তারা।
এ বিষয়ে জমির মালিক মাসুদ আলী বলেন, আমার কাছে লোকমান কিছু টাকা পায় আর সেই কারণেই আমার বসতবাড়ির সাড়ে ১৬ শতাংশ জমিসহ বাড়ি ও বাড়ির আসবাবপত্র দখল করে নিয়েছে সে। এখন আমি আমার পরিবার পরিজন নিয়ে বিচারের দাবীতে মানুষের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছি।
অভিযুক্ত লোকমান হোসেন বলেন, মাসুদের কাছে আমি টাকা পাই আর সেই কারণে মাসুদ বাড়িসহ আমার কাছে জমির বিক্রয় বায়নানামা করে দিয়েছে। যেহেতু আমার কাছে জমি বিক্রি করবে সেই কারনেই তাদের সাথে আলোচনা করেই আমি বাড়িটি দখলে নিয়েছি।
এ বিষয়ে চাটমোহর সরৎগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্য শহিদুল ইসলাম বলেন, থানায় অভিযোগ দায়ের পর রোববার ঘটনাস্থলৈ পরিদর্শণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, দখলদার লোকমান হোসেন বাড়ির মালিক মাসুদের কাছে টাকা পায়। আর এই টাকা পাওয়ার সুবাদে তিনি বাড়ি দখলে নিয়েছেন। তবে বিষয়টি নিয়ে আরো তদন্ত হচ্ছে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান তিনি।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *