চৌহালীতে মামার হাতে দুই ভাগনে খুন: ইউপি সদস্য আটক

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে সিরাজগঞ্জের চৌহালীতে মামা ও তার সহযোগীদের হামলায় দুই সহদোর দুই ভাই খুন হয়েছেন। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এক নারী ইউপি সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার (৮ ডিসেম্বর) দুপুরে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মিল্টন হোসেন (৩২) নামে বড় ভাই মারা যান। এর আগে শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) রাতে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল থেকে ঢাকায় নেয়ার পথে মারা যান ছোট ভাই কাউছার হোসেন (২৩)।

নিহত দুই ভাই উপজেলার পুর্ব কোদালিয়া দক্ষিনপাড়ার আন্তাজ আলীর ছেলে। আটক শিরিন সুলতানা একই গ্রামের রফিকুল ইসলাম বকুলের স্ত্রী ও খাসপুকুরিয়া ইউপির সংরক্ষিত নারী সদস্য।

স্থানীয়রা জানান, ইউপি সদস্য শিরিন সুলতানার স্বামী রফিকুল ইসলাম বকুলের সাথে তার চাচাতো বোনের ছেলে মিল্টন হোসেনের জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে শুক্রবার বিকেলে কাউছারকে দাওয়াত বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায় বকুল ও তার স্বজনেরা। সেখানে তাদের মধ্যে জমি বিবাদমান জমি নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এরই এক পর্যায়ে মামা বকুল, মামীসহ স্বজনেরা লাঠিসোটা নিয়ে কাউছারকে বেধড়ক মারপিট করে।

সংবাদ পেয়ে বড় ভাই মিল্টনসহ স্বজনরা সেখানে গেলে তাদেরও মারপিট করে করা হয়। এ ঘটনায় দুই কাউছার ও মিল্টন গুরুতর আহত হন। আহতদের উদ্ধারের পর প্রথমে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পরে ঢাকা নেয়ার পথে গভীর রাতে কাউছারের মৃত্যু হয়। আর আশংকাজনক অবস্থায় মিল্টনকে রাতেই ঢাকা মেডিক্যালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার দুপুর ১টার দিকে তিনিও মারা যান।

চৌহালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে নারী ইউপি সদস্যা শিরিন সুলতানাকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের মা বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামি করে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *