জনগণ ভোট দেয়ার সুযোগ পেলে ধানের শীষের জয় হবে-হাবিবুর রহমান হাবিব

বিশেষ প্রতিবেদক : পাবনা-৪ আসনের উপ-নির্বাচনে আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর। মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষদিনে আওয়ামী লীগ, বিএনপির ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী তিন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমাদেন। মনোনয়ন জমা শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তারা। বিএনপির প্রার্থীর দাবী জনগণ ভোট দেয়ার সুযোগ পেলে ধানের শীষ জয়ী হবে আর আওয়ামী লীগ প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাসের দাবী ভোটারদের প্রতি আমার কমিটমেন্ট উন্নয়নে অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করা এবং জাতীয় পার্টির প্রার্থী বলছেন, দলের হাইকমান্ডের সিদ্ধান্তে তারা নির্বাচনে এসেছিন। তাদের আশাবাদী ভাল ফলাফল পাবেন তারা।

পাবনা-৪ আসনের উপ-নির্বাচনে আ’লীগ. বিএনপিসহ তিনজন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষদিনে বুধবার বিকেলে প্রার্থীরা তাদের মননোনয়নপত্র জমা দেন।

আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাস, বিএনপির দলীয় প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব ও জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী রেজাউল করিম নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এ সময় তাদের সাথে দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এক প্রতিক্রিয়ায় বিএনপি প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, আমি মানুষের অধিকার আদায়ে ও গণতন্ত্র রক্ষায় আন্দোলন করেছি। উপ-নির্বাচনে জনগন যাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে আমার আপত্তি নেই। যদি আমাবে নির্বাচিত করে ভাল। যদি আমাকে নির্বাচিত না করে তাহলে কোনো আপত্তি থাকবে না। কিন্তু জনগণকে ভোটটা দেয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। আমার বিশ্বাসজনগণ ভোট দেয়ার সুযোগ পাবে এবং ধানের শীষের প্রার্থীকে জয়ী করবে।

এদিকে আওয়ামীলীগের প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাস বলেন, আমি দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ মানুষকে সাথে নিয়ে রাজনীতি করছি। সাধারণ মানুষ আমাকে ভালবাসে। আমার প্রত্যাশা সাধারণ মানুষ নৌকাতেই ভোট দিবে। ভোটারদের প্রতি আমার কমিটমেন্ট ঈশ্বরদী-আটঘরিয়ার উন্নয়নে অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করবো।

অপরদিকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী রেজাউল করিম বলেন, দলের হাইকমান্ডের সিদ্ধান্তে আমরা নির্বাচনে এসেছি এবং শেষ পর্যন্ত আমরা লড়বো। এর আগের নির্বাচনগুলোতে এই আসনে অন্য দলগুলোর সাথে লাঙল প্রতিক দেয়া হয়নি। এবার আমরা নির্বাচনে আসছি, এখন থেকে থাকবো। আমরা আশাবাদী ভাল ফলাফল পাবো।

রুপপুর পারমানবিক প্রকল্পের কাজ শুরু হওয়ার পর ঈশ্বরদীতে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা শুরু হয়েছে তা এগিয়ে নিতে একজন সৎ এবং জনবান্ধব প্রার্থীকেই বেছে নেবে এখানকার ভোটাররা বলছেন তারা। এই আসনে মোট ভোটার ৪ লাখ ৭১ হাজার। এর মধ্যে পুরুণ ভোটার রয়েছেন ২ লাখ ৩৬ হাজার ১৩৪জন এবং নারী ভোটার রয়েছেন ২ লাখ ৩৫ হাজার ৫২জন।

উল্লেখ্য, ঈশ্বরদী ও আটঘরিয়া উপজেলা নিয়ে গঠিত পাবনা-৪ আসনের উপ-নির্বাাচন অনুষ্ঠিত হবে ২৬ সেপ্টেম্বর। গত ২ এপ্রিল সাবেক ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর মৃত্যুতে আসনটি শূন্য হয়।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *