ডুব সাঁতার নিয়ে সজল-তিশা

বিনোদন: প্রতিশ্রুতি রক্ষার্থে গ্রামের মেয়ে লতার সঙ্গে ধ্রুবর বিয়ে দেন তার বাবা। অভিজাত পরিবারের ধ্রুব বিয়ের রাতেই লতাকে জানিয়ে দেয়, সে তাকে কোনো দিনও স্ত্রীর মর্যাদা দেবে না। বিয়ের পরদিন সকালে ধ্রুব ঢাকা ফিরে আসে। লতাও তার পিছু নিয়ে ঢাকা আসে। এরপর লতাকে ঢাকার একটি রেল স্টেশনে একা ফেলে ধ্রুব পালিয়ে যায়।

ঘটনাক্রমে বর্ষা নামে এক চিত্রনায়িকার সহকারীর কাজ পায় লতা। বর্ষার বাসায় সে থাকতে শুরু করে। একদিন বর্ষার বাসায় তার স্বামী ধ্রুবকে দেখতে পায়। বর্ষার সঙ্গে ধ্রুবর বিয়ের কথা চলছে।

এ কথা শুনে কান্নায় ভেঙে পড়ে লতা। লতার কান্না দেখে বর্ষা জানতে চায় কী হয়েছে, কেন কাঁদছে? লতা জানায়, এই ধ্রুবই তার স্বামী, যে তাকে বিয়ে করে কিন্তু দেখতে কালো বলে স্ত্রী হিসেবে অস্বীকার করে এবং ঢাকার একটি রেল স্টেশনে একা ফেলে পালিয়ে যায়। লতাকে তার স্বামীর কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার প্রতিজ্ঞা করে বর্ষা। তারপর শুরু হয় নতুন গল্প।

এমন গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে একক নাটক ‘ডুব সাঁতার’। এটি রচনা করেছেন জহির করিম। পরিচালনা করেছেন আদিত্য জনি। ধ্রুব চরিত্রে অভিনয় করেছেন আব্দুন নূর সজল। আর লতা চরিত্রে দেখা যাবে তাসনুভা তিশাকে।

এছাড়া বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেনÑরাইসা রিয়া, বাপ্পা, রেশমা রেশমী প্রমুখ। শনিবার রাত ৮টা ১০ মিনিটে বৈশাখী টিভিতে প্রচার হবে এ নাটক। পরিচালক আদিত্য জনি বলেন বরাবরই জমজমাট গল্প ও বড় তারকা নিয়ে ঈদের জন্য নাটক নির্মাণ করি।

এবার করোনার কারণে মাত্র দুটি নাটক নির্মাণ করেছিলাম। আশা করছি ‘ডুব সাঁতার’ নাটকটি টিভি দর্শকদের ঈদের বিনোদনে দারুণ খোরাক যোগাবে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *