ডেঙ্গু এখনও নিয়ন্ত্রণে আসেনি: সেতুমন্ত্রী

ডেক্স নিউজ : ডেঙ্গু এখনও নিয়ন্ত্রণে আসেনি বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এই ডেঙ্গু মোকাবিলা শুধু মৌসুমি প্রস্তুতি দিয়ে নয়, সারা বছর প্রস্তুতি রাখতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর প্রতি তিনি আহ্বান জানিয়েছেন।

বুধবার দুপুরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ওবায়দুল কাদের। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) এ আলোচনা সভার আয়োজন করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের মিলনায়তনে আলোচনা সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের উপস্থিতিতে তার উদ্দেশ্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে বলবো ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে এসেছে এটা মনে করার কোনো কারণ নেই।

ডেঙ্গু মোকাবিলায় সারা বছরের প্রস্তুতি রাখতে হবে। মৌসুমি আয়োজনে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ হবে না। আগস্ট মাসে ডেঙ্গু কমেছে, সেপ্টেম্বর মাসে নিয়ন্ত্রণে আসবে, আবার শুনছি সেপ্টেম্বর মাসে ভয়াবহ হবে। এনিয়ে দিনক্ষণ ঠিক করার দরকার নেই, সারা বছরের প্রস্তুতি রাখতে হবে।এইসব রোগ বাংলাদেশে শুরু হয়েছে, চলবে। শুধু ওষুধ ছিটিয়ে এডিস মশার বিস্তার ঠেকানো যাবে না। এডিস মশা বিস্তার ঠেকানোর সবচেয়ে বড় ওষুধ সচেতনতা। সেটা হচ্ছে মূল চিকিৎসা। ডেঙ্গু মোকাবিলা করা একটা লড়াই। আমি আশা করি আমরা এই লড়াইয়ে জয়ী হবো। বিদেশি কিছু এনজিও ‘মিয়ানমারের পক্ষ হয়ে’ রোহিঙ্গাদের নিয়ে ‘ষড়যন্ত্র করছে’ বলে অভিযোগ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, এখন রোহিঙ্গাদের নিয়ে নানান খেলা খেলছে। পরোক্ষভাবে বিদেশি কিছু এনজিও ষড়যন্ত্র করছে। মিয়ানমারকে সহযোগিতা করছে। গত ২২ অগাস্ট শরণার্থী প্রত্যাবসনের দ্বিতীয় দফা উদ্যোগ ভেস্তে যাওয়ার পর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে অভিযোগ করা হয়, কিছু এনজিও রোহিঙ্গাদের মিয়ানমার ফিরতে নিরুৎসাহিত করছে। এরপর ওই অভিযোগ শুনে এনজিওগুলোকে চিহ্নিত করার সুপারিশ করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। তবে সরকারের এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর মহাপরিচালক গত মঙ্গলবার এক অনুষ্ঠানে বলেন, কোনো এনজিওর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার আগে তারা ‘মাঠের তথ্য’ পেতে চান।

সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের বলছেন, ওইসব বিদেশি এনজিরও মধ্যে ‘পাকিস্তানপন্থি’ কয়েকটি এনজিও আছে। তবে কোনো সংস্থার নাম তিনি বলেননি। এরা বঙ্গবন্ধুর দুই খুনিকে পাকিস্তানে রেখেছে। আমাদের পাওনা আমাদের বুঝিয়ে দেন। পদে পদে আমাদেরকে বিপদে ফেলতে চান। খুনিদের ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ চলছে আমেরিকা, কানাডা থেকে। কিন্তু পাকিস্তানে যে দুই খুনি আছে, তাদের কাজসহ রেখে দিয়েছে পাকিস্তান। আমি জানি না এই পরিস্থিতির কবে পরিবর্তন হবে। সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে বিএনপিও এখন রোহিঙ্গা সঙ্কটকে ‘রাজনীতির হাতিয়ার’ হিসেবে ব্যবহার করতে চাইছে বলে অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, বাংলাদেশ থেকে বিএনপি আজকে এই রোহিঙ্গাদের নিয়ে নতুন ইস্যু খুঁজে নতুন খেলায় মেতে উঠেছে। স্বাভাবিক রাজনীতি করতে যারা ব্যর্থ, নেতিবাচক রাজনীতি করতে করতে যারা বারে বারে ব্যর্থ হয়েছে, জনসমর্থন আদায়ে এখন তারা ষড়যন্ত্রের পথ বেছে নিয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক কনক কান্তি বড়ুয়া আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিব) সভাপতি ডা. ইকবাল আর্সলান, বিএমএ’র মহাসচিব ডা. ইহতেশামুল হক চৌধুরী,স্বাচিবের মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এম এ আজিজ, বিএসএমএমইউ’র উপ-উপাচার্য শহীদুল্লাহ সিকদার, অধ্যাপক ডা. সাহানা আখতার রহমান, অধ্যাপক মুহাম্মদ রফিকুল আলম, ডা. মো. আতিকুর রহমান প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *