ধোনিকে প্রথম দেখার স্মৃতি টেন্ডুলকারের

স্পোর্টস: আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মহেন্দ্র সিং ধোনির অভিষেকের আগে তার কথা জানতেন না শচিন টেন্ডুলকার। তবে দেখার পর কিংবদন্তি এই ব্যাটসম্যান দ্রুতই বুঝে যান, এক রতœ পেতে যাচ্ছে ভারত। ধোনি শনিবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার পর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসে এই কিপার-ব্যাটসম্যানকে প্রথম দেখার স্মৃতি আওড়ান টেন্ডুলকার। “ভারত দলে জায়গা পাওয়ার আগ পর্যন্ত আমি ধোনির নাম শুনিনি।

বাংলাদেশে ওয়ানডে সিরিজে আমি তাকে প্রথম দেখি। আমি সৌরভ গাঙুলির সঙ্গে আলোচনা করছিলাম আর বলছিলাম, এই ছেলেটার মাঝে বিশেষ কিছু একটা আছে, সে অনেক বড় শট খেলতে পারে।” “তবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বড় শট খেলা আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা দুটি ভিন্ন ব্যাপার। প্রস্তুতি ম্যাচে সে দুটি বাউন্ডারি মারার পর সৌরভকে বলেছিলাম, ‘দাদা এর হাতে যেন চাবুক আছে যেটা সে বল খেলার সময় কাজে লাগায়। এটা দেখার জন্য বিশেষ কিছু।

ভারত দলের হয়ে সেটাই ছিল তার প্রথম সফর। তবে সে যেভাবে বল খেলছিল তাতে মনে হচ্ছিল, সে স্পেশাল একজন।” ক্যারিয়ারের শুরুতে ধোনি কেমন ছিলেন, এর একটা আভাস দিলেন টেন্ডুলকার। “আমার সঙ্গে পুরোটা সময় সে ছিল নিশ্চুপ। আমি তার ব্যাপারে অনেক গল্প শুনেছিলাম যে, সে এগিয়ে এসে হ্যালো বলবে না। অনেকের কাছেই তাকে রূঢ় মনে হতে পারে। তবে আমরা বাধাটা ভাঙি। তার ব্যবহার বোধগম্য। যখন নতুন কেউ দলে আসে এটা হয়।

সাবলীল হতে একটু সময় লাগে।” ধোনির অনেক ইনিংস খুব কাছ থেকে দেখেছেন টেন্ডুলকার। কোনো একটিকে সেভাবে এগিয়ে রাখতে পারছেন না তিনি। ধোনির বিদায়বেলায় তার মনে পড়ছে, সতীর্থদের বলা একটি কথা, ‘ধোনি আশা দিয়েছে, দেখিয়েছে কোনো কিছুই অসম্ভব না।’

“ধোনির সুস্থির মনোভাব আমার সবচেয়ে ভালো লাগে। এটাই তাকে এত সফল হতে সাহায্য করেছে। এটা ছিল চমৎকার একটি যাত্রা। ছোট একটা জায়গা (রাঁচি) থেকে উঠে এসে ১৫ বছর ভারতের হয়ে খেলেছে সে। আমি তার সব ইনিংস উপভোগ করেছি, কেবল একটা ইনিংস বেছে নেওয়া আমার জন্য কঠিন।”

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *