নজরদারির পরামর্শ চালের গুদামে

অর্থনীতি: দেশে কৃত্রিম খাদ্য সংকট এড়াতে চাল মজুদের ঘোষিত হিসাব এবং গুদামে চালের মজুদ বা সরবরাহ হচ্ছে কি না, তা গুরুত্বের সঙ্গে নজরদারিতে রাখতে মন্ত্রণালয়কে পরামর্শ দিয়েছে সংসদীয় কমিটি।
একই সঙ্গে চাল আমদানিতে শুল্ক বাড়ানোর সুপারিশও করা হয়েছে।
রোববার সংসদীয় কমিটির বৈঠকে খাদ্য নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে এসব সুপারিশ দেওয়া হয়।
বৈঠক শেষে কমিটির সদস্য হুইপ আতিউর রহমান আতিক বলেন, “অনেক সময় কাগজে-কলমে খাদ্য মজুদের যে ঘোষণা দেওয়া হয় তার সঙ্গে বাস্তবে গুদামে মজুদের মিল খুঁজে পাওয়া যায় না। এ বিষয়ে অন্য সদস্যদের মতামতের ওপর ভিত্তি করেই কমিটি মন্ত্রণালয়কে তদারকি বাড়ানোর জন্য বলেছে। যাতে কাগজপত্রের সঙ্গে প্রকৃত মজুদের গরমিল কখনও না হয়।”
সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশে যাতে কোনো ধরনের কৃত্রিম খাদ্য সংকট তৈরি না হয় সেজন্য চাল মজুদের ক্ষেত্রে যে হিসেব প্রদর্শন করা হয় এবং প্রকৃতপক্ষে গুদামে চালের সেই পরিমাণ মজুদ আছে কি না বা সরবরাহ হচ্ছে কি না সে বিষয়টি অতি গুরুত্বের সাথে নজরদারিতে রাখাতে মন্ত্রণালয়কে পরামর্শ দেওয়া হয়।
বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে ভেজালমুক্ত খাদ্য অভিযান জোরদার করার সুপারিশ করা হয়। আসন্ন রমজান মাসে খাদ্যদ্রব্যের মূল্য নিয়ন্ত্রণ ও নিরাপদ খাদ্য সরবরাহের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের সুপারিশ করা হয়। এজন্য প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর মন্ত্রী ও কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে বৈঠকের মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের পরামর্শ দেওয়া হয়।
বৈঠকে ধান গম ও অন্যান্য খাদ্যশস্যের প্রকৃত সরকারি ধার্যমূল্য যাতে কৃষক পায় সেজন্য প্রয়োজনীয় তদারকি জোরদার করাসহ বিদেশি চাল আমদানিতে আমদানি শুল্ক বৃদ্ধির বিষয়েও মন্ত্রণালয়কে পরামর্শ দেয় কমিটি।
কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ নাসিমের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার, নুরুল ইসলাম নাহিদ, আতিউর রহমান আতিক, ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু, আবদুল হাই, আয়েন উদ্দিন, আতাউর রহমান খান ও আঞ্জুমান সুলতানা অংশ নেন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *