পাকিস্তানের এফ-সিক্সটিন ব্যবহার : মন্তব্য করবে না যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মার্কিন জেট বিমান এফ-১৬ ব্যবহারের ক্ষেত্রে পাকিস্তান চুক্তিকালীন বিধি ভঙ্গ করেছে কিনা, তা খতিয়ে দেখার কথা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। গত মঙ্গলবার ভারতের পক্ষ থেকে ওয়াশিংটনের কাছে এ-সংক্রান্ত আনুষ্ঠানিক অভিযোগ ও প্রমাণ হাজির করা হয়। একইদিনে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে বিষয়টি তাদের নজরে থাকবে। সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে ব্যবহারের শর্তে পাকিস্তানের কাছে ওই মডেলের বিমানগুলো বিক্রি করেছিল ওয়াশিংটন। তবে ভারতের দাবি, ২৭ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান এফ-১৬ ব্যবহার করেই তাদের বিমান প্রতিহত করেছে। তবে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে প্রকাশ্যে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে তারা। ইসলামাবাদ ও ওয়াশিংটনের মধ্যে স্বাক্ষরিত এফ-সিক্সটিন ক্রয় সংক্রান্ত চুক্তিতে বলা হয়েছে, অন্য কোনও দেশের বিরুদ্ধে পাকিস্তান ওই বিমান ব্যবহার করতে পারবে না। এফ-সিক্সটিনের সঙ্গে যুক্ত করে ব্যবহারযোগ্য যেকোনও অস্ত্র ব্যবহারের আগে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে পাকিস্তানকে অনুমতি নিতে হবে। ভারতীয় বিমানবাহিনীর অভিযোগ, ২৬ ফেব্রুয়ারি আজাদ কাশ্মিরে ভারতের বিমান হামলার পরদিন ২৭ ফেব্রুয়ারি দুই দেশের আকাশে যে সামরিক উত্তেজনা তৈরি হয়, সে সময় পাকিস্তান নিজের হাতে থাকা যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ব্যবহার করেছে। তবে ইসলামাবাদ বলছে, তারা কোনোভাবেই সেদিন এফ-১৬ ব্যবহার করেনি। গত গত মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে ভারতের অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের উপ-মুখপাত্র রবার্ট পালাডিনো বলেন, ‘আমরা ওই প্রতিবেদনগুলো দেখেছি এবং এ ইস্যুটি খুব নিবিড়ভাবে অনুসরণ করছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমি কোনও কিছুই নিশ্চিত করতে পারছি না। তবে নীতিমালাজনিত কারণে মার্কিন প্রতিরক্ষা প্রযুক্তি কিংবা যোগাযোগগত দ্বিপাক্ষিক চুক্তির বিষয় নিয়ে আমরা প্রকাশ্যে মন্তব্য করতে পারি না। আমরা এটি পর্যবেক্ষণে রেখেছি এবং তা অব্যাহত থাকবে। এর বেশি কিছু আমি আর বলতে চাই না।’ উল্লেখ্য, ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে সে দেশের আধাসামরিক বাহিনীর ওপর জইশ-ই-মোহাম্মদের স্বঘোষিত আত্মঘাতী হামলায় ৪০ জন নিরাপত্তাকর্মী নিহত হলে এই পর্যায়ের ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনা শুরু হয়। হামলায় রাষ্ট্র হিসেবে পাকিস্তানের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ তুলে ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের মাটিতে বিমান হামলা চালায় ভারত। এরপর থেকেই দুই দেশের সংবাদমাধ্যমে ফলাও করে উঠে আসছে পরস্পরের বিরুদ্ধে হামলা ও একে অন্যের হামলা প্রতিহত করার খবর। দুই দেশই একে অপরকে শাসাচ্ছে নিজেদের হাতে থাকা শতাধিক পারমাণবিক অস্ত্রের ইঙ্গিত সামনে এনে। ভারতীয় বিমানবাহিনীর অভিযোগ, সম্প্রতি আজাদ কাশ্মিরে ভারতের বিমান হামলার পরদিন ২৭ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের সঙ্গে তাদের সাম্প্রতিক উত্তেজনা চলাকালে পাকিস্তানের একটি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান থেকে মিসাইল নিক্ষেপ করা হয়। আর পাকিস্তানে একমাত্র এফ-১৬ যুদ্ধবিমানই এই মিসাইল বহনে সক্ষম। দিল্লির মার্কিন দূতাবাসের ডিফেন্স অ্যাটাশের কাছেও এ-সংক্রান্ত প্রমাণ তুলে ধরার দাবি করেছে ভারত। ভারতের দাবি, পাকিস্তানের সঙ্গে তাদের সাম্প্রতিক উত্তেজনা চলাকালে পাকিস্তানের একটি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান থেকে মিসাইল নিক্ষেপ করা হয়। আর পাকিস্তানে একমাত্র এফ-১৬ যুদ্ধবিমানই এই মিসাইল বহনে সক্ষম। দিল্লির মার্কিন দূতাবাসের ডিফেন্স অ্যাটাশের কাছেও এ-সংক্রান্ত প্রমাণ তুলে ধরার দাবি করেছে ভারত।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *