পাবনার ছাওয়াল হিসাবে আমি কাজ করতে চাই—অতিরিক্ত সচিব সাবিরুল ইসলাম বিপ্লব

পিপ (পাবনা) : পাবনার সাংবাদিক পরিবারের সন্তান সাবিরুল ইসলাম বিপ্লব অতিরিক্ত সচিব পদে পদোন্নতি পাওয়ায় সংবর্ধণা প্রদান করা হয়েছে। তিনি ভাষা সংগ্রামী ও বীরমুক্তিযোদ্ধা আমিনুল ইসলাম বাদশার সন্তান ও পাবনা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা রবিউল ইসলাম রবির ভাতিজা। ০৯ এপ্রিল (শনিবার) রাতে পাবনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সংক্ষিপ্ত পরিসরে শুভেচ্ছা ও চায়ের আড্ডার মধ্যে আলোচনা সভায় অতিরিক্ত সচিব বিপ্লব চলমান কর্মজীবনের নানা বিষয় নিয়ে কথা বলেন।
পাবনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমানের সভাপতিত্বে ও কল্যাণ সম্পাদক সরোয়ার মোর্শেদ উল্লাসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, পাবনা সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি প্রবীণ সাংবাদিক আব্দুল মতীন খান, প্রেসক্লাব সহসভাপতি শহীদুর রহমান শহীদ, মাছরাঙা টেলিভিশনের উত্তরাঞ্চলীয় বুরো চীফ উৎপল মির্জা, প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী সদস্য জহুরুল ইসলাম, বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জব্বার, প্রেসক্লাবের সাংস্কৃতিক সম্পাদক কলিট তালুকদার, একাত্তর টিভির মোস্তাফিজুর রহমান রাসেল প্রমুখ।
শুভেচ্ছা বিনিময়ের সময় বক্তারা বলেন, সাবিরুল ইসলাম বিপ্লব মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব পদে পদোন্নতি পেয়েছেন এটি আমাদের পাবনার গর্বের বিষয়। তিনি পাবনার সংবাদিক পরিবারের সদস্য। পাবনা নিয়ে তিনি কাজ করতে চান। সরকারি পদ নয় মন মানসিকতা ও সরকারের দেয়া দায়িত্ব যথাযথ ভাবে সততার সাথে পালন করতে চান। তাই এই তারুণ্য নির্ভর দায়িত্বশীল মানুষের কাছে জেলার উন্নয়নের সার্বিক সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন সকলে। শুভেচ্ছা বিনিময়ের শুরুতেই পাবনা প্রেসক্লাব সদস্যরা তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এসময় অতিরিক্ত সচিব সাবিরুল ইসলাম বিপ্লব বলেন, শিক্ষা জীবনে আমি সংবাদপত্রে কাজ করেছি। আমার পিতার যে সংগ্রামী জীবন আমি দেখেছি সেটি কখনো ভুলে যাওয়ার নয়। আমার বাবা পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্তির জন্য সবসময় সংগ্রাম করেছেন। জীবনে কখনো চাকুরী করবো সেটা ভাবিনি। আমি সাবিরুল ইসলাম ছাত্রবস্থায় পোষাক নিয়ে বেশি ভাবিনি ‘ইন করিনি’ কখনো। কিন্তু আজ আমাকে প্রতিদিন পোষাক পরিপাটি হয়ে চলতে হয়। সরকারে নিয়োম অনুসরণ করে সকল কাজ করতে হয়। বঙ্গবন্ধু বা আমার বাবা কেউ কখনো নিজের জন্য ভাবেনি। সাধারন মানুষের জন্য নিজেদের জীবন উৎসর্গ করেছেন। জনগনের অর্থের বিনিময়ে আমাদের বেতন হয়ে থাকে তাই দায়বদ্ধ থাকতে হবে। জনগণের চাকর হিসাবে আমরা সরকারে কাজ করছি। তবে আমি সারা বাংলাদেশের জনগণের কাছে আমরা দায়বদ্ধ রয়েছি। তাই সকলের জন্য কাজ করতে হবে। আর আমার জেলা পাবনা আমি এই মাটির সন্তান। এখানে আমি সকলের সাথে মিলেমিশে কাজ করতে চই। এখানে কোন সরকারিরপদ নয় আমি বাদশার সন্তান আপনাদের ভাই আপনাদের সাথে বন্ধুরমত থাকতে চাই।
পাবনার সকল উন্নয়নে যদি আমি কিছু করতে পারি তা হলে নিজের কাছে ভালো লাগবে। পাবনার ছাওয়াল হিসাবে আমি আপনাদের সহযোগিতা চাই। দেশের অন্য জেলার দায়িত্বশীল মানুষেরা নিজ জেলার জন্য সকলে একত্রিত্বভাবে কাজ করছেন। আমাদেরকেও এক সাথে জেলার উন্নয়নের জন্য কাজ করতে হবে।
এসময়র উপস্থিত ছিলেন, দৈনিকে বিবৃতির নির্বাহী সম্পাদক ইয়াসিন আলী মৃধা রতন, রাজিউর রহমান রুমি, আহম্মেদ হুমায়ুন কবির তপু, রফিকুল ইসলাম সুইট, আবুল এহসান এলিচ, আবু হাসনা মুহম্মদ আয়ুব, মনিরুজ্জামান শিপন, রিজভী জয়, মিজান তানজিল, সেলিম মোর্শেদ রানা প্রমুখ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!