পাবনার ফরিদপুরে আকস্মিক অসুস্থতায় দুইবোনের মৃত্যু : আতংকে অসুস্থ্য আরো কয়েকজন ; মেডিকেল টিমের এলাকা পরিদর্শণ

বিশেষ প্রতিবেদক : পাবনার ফরিদপুরে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে সাথী ও বিথী নামে আপন দুইবোনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে সাথী নিজ বাড়ীতে এবং বিথি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। দুইবোনের মৃত্যুর পর এলাকাবাসীর মাঝে দেখা দিয়েছে অজানা আতংক। সেই আতংকে অসুস্থ্য হয়ে পড়েছেন আরো কয়েকজন। তবে দুই বোনের মৃত্যু সম্পর্কে সঠিক কোন কারণ জানাতে পারেননি স্বজন ও চিকিৎসকরা। তবে খাদ্যে বিষক্রিয়া অথবা অন্যকোনো কারণে তাদের মৃত্যু হতে পারে বলে ধারণা করছেন চিকিৎসক। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে রোববার স্বাস্থ্য বিভাগের একটি মেডিকেল টিম এলাকা পরিদর্শণ করেছে।

পাবনার ফরিদপুর উপজেলার হাদল ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের শহীদুল ইসলামের মেয়ে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী সাথী খাতুন ও চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী বিথী খাতুন। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে স্কুল থেকে বাড়িতে ফেরার পরে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে তারা। মাঝে মধ্যেই বমি করতে থাকে। প্রথমে পল্লী চিকিৎসক দিয়ে চিকিৎসা করানো হলেও অবস্থার উন্নতি হয়নি। এর মধ্যে শুক্রবার রাতে বড় বোন সাথী বাড়িতে থাকাবস্থায় মারা যায় এবং গুরুতর অসুস্থ্য ছোট বোন বিথীকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সকালে মারা যায় বিথী। কি কারণে তাদের মৃত্যু হয়েছে তা জানেন না স্বজনরা। হঠাৎ দুইবোনের এমন মৃত্যুর পর এলাকাবাসীর মাঝে দেখা দেয় অজানা আতংক। এর ফলে গত দুইদিনে অসুস্থ্য হয়ে পড়েন আরো কয়েকজন।  তাদের মধ্যে তিনজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের দেয়া হয়েছে প্রাথমিক চিকিৎসা।

সাথী ও বিথীর মা সুফিয়া খাতুন বলেন, মেয়ে দুটি আমাকে রাতে ডাকলো বুমি করছি মা ওঠো। উঠে দেখি বুমি করে মেয়ে দুটো অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে। বড় মেয়ে মারা গেছে বাড়িতে আর ছোট মেয়ে মারা গেছে হাসপাতালে। কি কারণে মরা গেছে আমি কিছুই বুঝতেছিনা।

এলাবাসী জানায়, আমরা দেখতে পাচ্ছি যে এখানে একজন বুমি বা মাথা ঘুরলেও এই যে সাথি-বিথী মারা গেলো তাদের মতই হয়ত হয়ে গেছে এজন্য তারা অনেক ভয়ের মধ্যে আছে। আমরা বুঝানোর চেষ্টা করছি যে ভয়ের কিছু নাই। চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অসুস্থ্য দুই গৃহবধূ জানান, পেট ব্যথা, বমি বমি ভাব ও ঘাড় অবশ হয়ে আসার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে তারা।
তবে দুইবোনের আকস্মিক মৃত্যু সম্পর্কে সঠিক কোনো কারণ নিশ্চিত করে বলতে পারেননি চিকিৎসকরা। তারা বলছেন, কি কারণে তাদের মৃত্যু হয়েছে সেটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আতংকে অনেকে অসুস্থ্য হচ্ছেন। সবাইকে আতংকিত না হওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে ফরিদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর আরএমও ডাঃ লুলু ওয়াল মারজান বলেন, আমরা ফরিদপুর হাসপাতাল থেকে উদ্বোধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনায় মেডিকেল টিমের সদস্যি হসেবে এসেছি। যে দুইজন মেয়ে মারা গেছে তাদের বিষযে পরিক্ষা নিরিক্ষা চলছে। পরে হয়ত আমরা মৃত্যুর কারণ জানাতে পারব। আর তাদের মৃত্যুর কারণে আশেপাশের মানুষ আতঙ্কের কারণ হয়েছে আমরা তাদেরকে দেখতে এসেছি তাদেরকে চিকিৎসা দিয়েছি। এবং পরামর্শ দিয়েছি।

পাবনা জেনারেল হাসপাতালের জুনিয়র কনসালটেন্ট ডাঃ সালেহ্ মুহাম্মদ আলী বলেন, একজন পেটের ব্যাথা নিয়ে এসেছে। তিনি এখন ভালো আছেন, খাওয়া দাওয়াও করছেন। তিনি এখন বাড়ি চলে যেতে পারছেন। আরেকজন আছেন। তিনি হঠাৎ করে জ্ঞান নাই এমন হয়ে এসেছিলেন সার্বিক পরিক্ষা নিরিক্ষা করে আমরা তার কিছু সমস্যা পেয়েছি। পরিক্ষা রিপোর্ট আসার পরে নিশ্চিত হয়ে রোগ সনাক্ত করতে পারব।

বিষয়টি জানার পর জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশে ফরিদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৬ সদস্যের একটি মেডিকেল টিম রোববার ওই এলাকা পরিদর্শণ করেছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *