পাবনায় ঈদের দুইদিনে কলেজ ও স্কুল শিক্ষার্থীসহ তিনজন গণধর্ষণের স্বীকার। আটক-৪

পিপ (পাবনা) : পাবনার চাটমোহরে ঈদের দুইদিনে ৪৮ ঘন্টায় দুই কলেজ শিক্ষার্থী গণধর্ষনসহ আপর এক স্কুল শিক্ষার্থীকে অপহর করে ধর্ষণের স্বীকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই দুটি ঘটনায় থানাতে পৃথক দুটি মামলা দায়ের হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ঠ থানার পুলিশ কর্মকর্তা।

ঘটনার বিষয়ে পাবনা চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নাসির উদ্দিন বলেন, প্রথম ঘটনাটি ঈদের দিন সন্ধ্যায় গুনাইগাছা ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামে এক কলেজ শিক্ষার্থী ও তার বান্ধবীকে এলাকার কিছু বখাটেরা রাস্তা থেকে জোড় পূর্বক তুলে নিয়ে পাশবর্তী পাঠ ক্ষেতে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় ওই কলেজ শিক্ষার্থীর সঙ্গে থাকা অপর কিশোরী ধর্ষকদের কাছ থেকে পালিয়ে চিৎকার দিলে স্থানীয়রা তিন অহরণকারীকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।

আর ঘটনা স্থলে থেকে অপর এক ধর্ষক পালিয়ে যায়। আটককৃতরা হলেন, চরপাড়া গ্রামের জয়নাল হোসেনের ছেলে শুকুর আলী, মকবুল হোসেনের ছেলে রেজাউল করিম ও শাহজাহান আলীর ছেলে ইসমাইল হোসেন। পলাতক অপর জনের নাম এখনো জানা যায়নি।

অপর ঘটনাটি একই উপজেলার হড়িপুর এলাকা থেকে এক স্কুল শিক্ষার্থীকে প্রতিবেশি এক যুবক অপরহরণ করে। অপহরণের পরে উদ্ধারকৃত ঘটনা স্থলে ওই কিশোরীকে ধর্ষণের চেষ্টার করে ওই যুবক। ঘটনার পরে পুলিশ নাটোর বড়াই গ্রাম এলাকায় অভিযান করে ওই অপরহরণকারীর ভাইয়ের বাড়ি থেকে ভিকটিমসহ ওই যুবককে আটক করে পুলিশ।

এই দুটি ঘটনায় পরিবারের সদস্যরা বাদী হয়ে থানাতে পৃথক দুটি মামলা দায়ের হয়েছে বলে জানা গেছে। বর্তমানে আইনগত পক্রিয়া শেষে তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করা করা হয়েছে।

এই দুটি ধর্ষণের ঘটনার তদন্তের জন্য উভয় ভিকটিমকে পাবনা জেনালে হাসপাতালে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিলো। পরীক্ষা শেষে প্রাথমিক ভাবে একজন ধর্ষণের স্বীকার ও অপর একজনকে ধর্ষনের চেষ্টা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক ডাঃ নারগীস সুলতানা। তবে তিনজনের ডাক্তারী পরীক্ষার রিপোর্ট আগামীকাল পুলিশের কাছে দেয়া হবে বলে জানান চিকিৎসক।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *