পাবনায় বিক্রয় মেলায় দর্শনার্থী ও ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়

জেলা প্রতিনিধি, পাবনা : পাবনায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে স্থানীয় নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে খাদ্য প্রর্দশনী ও বিক্রয় মেলা। মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এই মেলাতে ভোজন প্রেমী দর্শনার্থী ও ক্রেতাদের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ করা গেছে। মেলাতে প্রতিটি স্টলে নিজেদের তৈরি বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী নিয়ে উপস্থিতি হয়েছেন নারী উদ্যোক্তারা। ক্রেতাদের পছন্দসই খাবার মেলা প্রাঙ্গণেই প্রস্তুত করে পরিবেশ করা হচ্ছে। একই সাথে ক্রেতাদের সাথে পরিচয়ের মাধ্যম নিজেদের ব্যবাসার প্রসার ঘোটছে বলে মনে করছেন তারা।
শহরের রাধানগর মজুমদার একাডেমী স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে স্থানীয় নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে ৫দিনব্যাপী খাদ্য প্রর্দশনী ও বিক্রয় মেলা চলছে। হাংরি পাবনার আয়োজনে দ্বিতীয় বারেরমত এই আয়োজনে ব্যাপক দর্শনার্র্থী ও ক্রেতাসমাগম ঘোটেছে মেলা প্রাঙ্গনে। চলতি মাসের ২৭ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া এই মেলা শেষ হবে ৩১ ডিসেম্বর শুক্রবার। জেলার ৫০ জন নারী উদ্যোক্তাদের সমন্বয়ে ৩২টি স্টোলের মাধ্যমে এই খাদ্য প্রর্দশনীর আয়োজন করা হয়েছে। বিভিন্ন প্রকারের দেশী পিঠা, কেক, ফুচকা, মাংসের তৈরি বিভিন্ন ধরনের খাবারসহ সামদ্রিক মাছ বিক্রি হচ্ছে মেলাতে। জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সংগ্রহকৃত আর নিজেদের তৈরিকৃত খাদ্য নিয়ে উপস্থিত হয়েছেন তারা।  বিশেষ করে হাতে তৈরি ঘি, মিষ্টিসহ দুধের খাদ্য সামগ্রী বিক্রি হচ্ছে এবারের খাদ্য মেলাতে। করোনাকানী সময়ে ঘরবন্দী নারীদের কর্মমুখী ও বার্তি উপার্জনের অন্যতম মাধ্য হিসাবে এই হাংরি পাবনা এই মেলার আয়োজন করেছে। মেলাতে প্রতিদিন লক্ষাধিক টাকার খাদ্য সামগ্রী বিক্রি হচ্ছে।
মেলার আহবায়ক দেয়ান মাহাবুব বলেন, সমাজের জন্য মানুষের জন্য সেবামূল যে কাজ গুলো রয়েছে সেটি করে যাওয়ার চেষ্ট করছি। করোনাকানীন সময়ে দেশের অনেক নারী পুরুষ বেকার হয়ে পরেছে। কর্মহীন এই নারীদের জন্য কিছু করা প্রয়াশ থেকে তাদেরকে সাথে নিয়ে তিন বছর আগে হাংরি পাবনা নামে একটি ফেসবুক পেজ খুলি। সেখানে বাড়িতে তৈরি হোমমেড খাবার গ্রাহকের দাড়প্রান্তে পৌছে দেবার প্রত্যয় নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু। এখন আমাদের অনেক নারী সাবলম্বি। অন্য পেশার পাশাপাশি নিজেরা ঘড়ে বসে খাদ্য তৈরি করে বিভিন্ন পন্য বিক্রি করে বেশ ভালো উপার্জন করছে। সরকারি পৃষ্টপোষকা পেলে এই সকল নারীরা নিজের ভাগ্যের পরিবর্তন নিজেরাই করতে পারবে বলে আমি মনে করি। এই মেলার মাধ্যমে সকলের শ্রেনী পেশার মানুষের সাথে তাদের পরিচয় ঘোটছে। সকলেই দেখে বুঝি ভালোমন্দ বিচার করে তাদের পছন্দের খাদ্য পণ্য কিনছে। আবার পরবর্তীতে নেয়ার জন্য অর্ডার করছে তাদের। এর মাধ্যমে তাদের একটি ব্যবসায়ীক  বন্ধন তৈরি হচ্ছে।
হাংরি পাবনা নামে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে ২০১৯ সালে এই নারী উদ্যোক্তাদের যাত্রা শুরু হয়। করেনাকানীন সময়ে জেলার শিক্ষিত কর্মহীন নারী পুরুষদের ঘরে বসে উপার্যজনের একটি মাধ্যম হিসাবে কাজ শুরু করেন তারা। গত বছর ছোট পরিসরে মেলার মাধ্যমে নিজেদের আত্ম প্রকাশ ঘটান এই নারী উদ্যোক্তারা। চাকুরীর পিছে না ছুটে ঘরে বসে সল্পপূজি নিয়ে ব্যবসা শুরু করেন তারা। ক্রেতাদের পছন্দের খাদ্যের অর্ডার নিয়ে সেটি ক্রেতার বাড়িতে পৌছে দিয়ে সল্প সময়ের মধ্যে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠে হাংরি পাবনা। এখন এই গ্রæপের সদস্য সংখ্যা পাঁচ শতাধিক। এবারের মেলাতে অংশ গ্রহণ কারী প্রায় প্রতিটি উদ্যোক্ততাই বেশ ভালো সারা পেয়েছেন বলে জানান তারা। মেলাতে বিশেষ ছাড়ে নিত্যা প্রয়োজনী ব্যবহার সামগ্রী  তৈল, গুড়া সাবান, দুধ, সরিসার তৈল, ঘি, কুমড়া বড়ি, পায়েস, নারীকেলের তৈরি খাদ্য সমাগ্রী সুলভ মুল্যে বিক্রি হচ্ছে। প্রতিদিন সকাল ১১ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত মেলার গেট খোলা থাকছে। ৩১ ডিসেম্বর মেলার সমাপ্ত হবে। প্রতিদিন মেলাতে বিভিন্ন খাদ্য দ্রæত সময়ের মধ্যে শেষ করার প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মেলার প্রথম দিনে উদ্বোধন করেন পাবনা সদর আসনের সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক প্রিন্স ও পাবনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লালসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গেরা।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *