পাবনায় ‘স্বাধীনতা চত্বর’ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনা : পাবনার ঐতিহাসিক বীর মুক্তিযোদ্ধার রফিকুল ইসলাম বকুল পৌর টাউন হল স্বাধীনতা চত্বর নামে উদ্বোধন করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রবিবার সকাল সারে ১০টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তিনি এই আধুনিকায়ন ঐতিহাসিক স্বাধীনতা চত্বরের উদ্বোধন করেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু মেখ মুজিবুর রহমানসহ ইতিহাসের খ্যাতনামা ব্যক্তিদের স্মৃতি বিজরিত বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম বকুলের নামে এই স্বাধীনতা চত্বরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে পাবনায় ছিলো উৎসব মুখোর আমেজ।
ঐতিহাসিক পৌর টাউন হল স্বাধীনতা চত্বর থেকে এই অনুষ্ঠানে যোগ দেন স্বাধীনতা চত্বরের বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক  বিশিষ্ঠ শিল্প উদ্যোক্তা বীর মুক্তিযোদ্ধা অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু। এসসময় আরো উস্থিত ছিলেন  কেন্দ্রীয় আ.লীগের উপদেষ্টা পরিষদেরে সদস্য সাবেক দুদকের কমিশিনার শাহাব উদ্দিন চুপ্পু, পাবনা পৌর মেয়র কামরুল হাসান মিন্টু, বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলামের সহধর্মিনী নাসিমা উসলাম, পাবনা-১ আসনের সংসদ সদস্য শামসুল হক টুকু, সদর-৫ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক প্রিন্স, পাবনা-৩ আসনের সংসদ সদস্য মোকবুল হোসেন, পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য নূরুজ্জামান বিশ্বাস, পাবনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আহম্মেদ ফিরোজ কবির, জেলা প্রশাসক কবির মাহামুদ. পুলিম সুপার শেখ রফিকুর ইসলামসহ, বিভিন্ন সংবাদপত্র ও টেলিভিশনের গণমাধ্যম কর্মী, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেত্রীবৃন্ধ এসময় উপস্থিত ছিলেন। করেনা কালিন সময় সামাজিক দূরুত্ব বজায়ে রেখে এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের পাবনা থেকে ভিডিও বার্তায় প্রধানমন্ত্রীর সাথে কখা বলেন স্বাধীনতা চত্বরের আহবায়ক অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু। তিনি মুক্তযুদ্ধ চলাকালীন সময় ও ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুসহ সেদিনের নিহত পরিবারের সকল শহীদ সদস্যদের প্রতি  শ্রদ্ধা জানিয়ে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। এসময় তিনি উল্লেখ যোগ্য অনুষ্ঠানে  আমন্ত্রীত অতিথিদের সাথে প্রধানমন্ত্রীয় পরিচয় করিয়ে দেন।
প্রসঙ্গত, প্রায় ১ কোটি ৭০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে স্বাধীনতা চত্ত¡রের নির্মাণকাজ চলতি বছরের মার্চ মাসে শেষ হয়। আধুনিকায়নের পর এই স্থানটি হল উত্তরবঙ্গ তথা দেশের মধ্যে অন্যতম ”স্বাধীনতা চত্ত¡র” হিসাবে গন্য হবে। যেখানে প্রতিটি ইট পাথরের নকশায় মহান মুক্তিযুদ্ধ, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ,  স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামের ইতিহাস বিদ্যমান। স্বাধীনতা চত্ত¡রের প্রধান মঞ্চের দৈর্ঘ্য ৪৬ ফুট ও প্রস্ত ৪০ ফুট এবং উচ্চতা ২০ ফুট। যার দুই পাশে দু‘টি গ্রীণ রুম এবং টয়লেটসহ ওয়াশরুম রয়েছে। যার দৈর্ঘ্য ১৮ ফুট ও প্রস্ত ২৪ ফুট। মাঠের দৈর্ঘ্য ১১৮ ফুট ও প্রস্ত ১১৭ ফুট। যার তিন দিকে দুই স্তরের বসার গ্যালারী রয়েছে। মাঠের উত্তরপুর্ব কনার্রে প্রবেশের প্রধান ফটক ও দক্ষিণ ও পুর্ব কণার্রে ছোট একটি গেট রয়েছে। এ ছাড়া সর্বপরি পুরো মাঠে রয়েছে দৃষ্টি নন্দন সবুজ ঘাস। এই ঐতিহাসিক স্থানটি পূণরায় উন্মুক্ত হওয়ার মধ্যদিয়ে পাবনার বিভিন্ন সামাজি ও সাংস্কৃতি কর্মকান্ড প্রাণ ফিরে পাবে বলে মনে করছেন পাবনাবাসী।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *