পাবনা মানসিক হাসপাতালের পরিচালককে হাইকোর্টে তলব

পিপ (পাবনা) : পাবনার মানসিক হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ডা. রতন কুমার রায়কে আগামী ৯ মার্চ স্বশরীরে বিজ্ঞ হাইকোর্টে তলব করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিজ্ঞ ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল এবিএম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদের ব্যাক্তিগত সহকারীর মোবাইল ফোন নং (০১৬৮৪৬৮৩০৮০) উল্লেখ করে পাবনা সদর থানায় সাধারন ডায়েরি করার কারনে তার স্বপক্ষে ব্যাখা দিতে বলা হয়েছে। সে সাথে পাবনা পুলিশ সুপারকে ডায়েরি ভূক্ত ব্যাক্তিকে হয়রানি না করারও নির্দেশ দেয়া হয়।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাছিম আহম্মদ বলেন, পাবনা মানসিক হাসপাতালের প্যাডে ১২-০২-২০২০ তারিখের লিখিত ৪৬৯ নং স্মারকপত্রে হাসপাতালের দ্বায়িত্বে থাকা বর্তমান পরিচালক ডা. রতন কুমার রায় স্মাক্ষরিত আবেদনে জানান, ০১৬৮৪৬৮৩০৮০ নম্বর মোবাইল থেকে তাকে হুমকি দেয়া হয়েছে। তার আবেদনটি ১৩-০২-২০২০ তারিখের ৬৪২ নম্বর সাধারন ডায়েরিতে লিপিবদ্ধ করা হয়।

পরে তদন্ত করে দেখা গেছে উক্ত মোবাইল নাম্বারটি হাইকোর্টের বিজ্ঞ ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল মিষ্টার এবিএম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদের ব্যাক্তিগত সহকারী মো. শহীদুল ইসলামের। তিনি আরো বলেন, পরে আমরা জানতে পারি ২০১৪ সালে হাইকোর্টের বিজ্ঞ আইনজীবি মো. মেসবাহুল ইসলাম আসিফ পত্রিকায় প্রকাশিত মানসিক হাসপাতালের নিরাময়কৃত পনের জন রোগীকে বাড়ী না পাঠানোর কারনে ১০৮৯৬ নং একটি রীট পিটিশন দাখিল করেন। তারই প্রেক্ষিতে সরকার পক্ষে শুনানীর প্রস্তুতির জন্য রোগীদের পাঠানোর ব্যাপারে কি অগ্রগতি হয়েছে তার কাগজ পত্র বর্নিত মোবাইল থেকে পরিচালকের কাছে চাওয়া হয়েছিল।

পরিচালক ডা. রতন কুমার রায় সরকারী স্বার্থে এ ব্যাপারে কোন সহযোগতিা না করে বরং তিনি কিছু জানেন না বলে জানান। পরিচালক হিসেবে তিনি কিছু না জানার কথা বলায় হয়তো কোন বচসা হতে পারে। এ ব্যাপারে ডা. রতন কুমার রায়ের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, এ পর্যন্ত আমি কোন চিঠি পাইনি।

এদিকে সরকারী স্বার্থে বিজ্ঞ আদালতকে সহযোগিতা না করার কারনে পরিচালক ডা. রতন কুমার রায়কে নিয়ে হাসপাতাল অভ্যন্তরে ও এলাকাতে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ডা. রতন কুমার রায় মানসিক হাসপাতালে পরিচালক হিসেবে সাময়িক দ্বায়িত্ব নেবার পর থেকে একাধিক স্থানীয় ও জাতীয় দৈনিকে তার দূর্নীতি ও অপকর্মের তথ্য প্রকাশিত হয়েছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *