পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচনে ৬৫ শতাংশ ভোট পড়েছে- ইসি সচিব

ডেস্ক : পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচনে ৬৫ শতাংশ ভোট পড়েছে বলে জানান নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. আলমগীর। নির্বাচনে ছোট বাচ্চাদের কেন্দ্রের সামনে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে এমন প্রশ্নে ইসি সচিব বলেন, আইনের সবকিছুই বাস্তবায়ন করা যায় না। এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন, ভোটার নয় এমন কম বয়সীদেরও কেন্দ্রের সামনে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। গণমাধ্যমে তাদের ছবিও এসেছে। জবাবে ইসি সচিব বলেন, লাইনে তো যে কেউ দাঁড়াতে পারে। ভোটার ছাড়াও লাইনে দাঁড়াতে পারে। কারণ, তখন তো আর আইডি কার্ড দেখে চেক করা হয় না।

অনেককে দেখলে বোঝা যায় না যে, তার বয়স ১৮ হয়েছে। যখন ভোট দিতে যাবেন, তখন আপনাকে পরিচয় দিতে হবে, ভোটার কার্ড দেখাতে হবে। তখন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা যদি সন্তুষ্ট হয় যে, উনি ভোটার, তখনই তাকে ব্যালট পেপার দেয়া হয়, তার আগে নয়। লাইনে তো যে কেউ দাঁড়াতে পারে। তবে কেউ প্রমাণসহ আমাদের কাছে দিলে আমরা সেটা তদন্ত করবো। এর জন্য যদি কেউ দায়ী থেকে থাকে, আইনে যা বলা আছে, সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। আইনে বলা আছে, দায়িত্ব পালনে যদি কোনো সরকারি কর্মকর্তা অবহেলা করে তাহলে সাত বছরের জেল আর সাধারণ মানুষ অপরাধ করলে তাকে এক বছর পর্যন্ত জেল দেয়া যায়। আরেক সাংবাদিক জানান, আইনে বলা আছে ভোট কেন্দ্রের ৪০০ গজের ভেতরে বহিরাগত কেউ থাকতে পারবে না। আপনি বলছেন, বহিরাগতরা কেন্দ্রে থাকতে পারে। এটা আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কি না?

জবাবে মো. আলমগীর বলেন, বহিরাগত তো ততক্ষণ পর্যন্ত ধরা যাবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত না তারা ভোট দিতে ঢুকবে। কারণ, এমনও কেন্দ্র আছে, যার বেড়া নেই, গেট নেই, খোলা মাঠ। কে কোন জায়গা দিয়ে ঢুকছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কয়জনকে বাধা দেবে? এটা তো সম্ভব নয়। বলা আছে, ৪০০ গজের মধ্যে বহিরাগত কেউ প্রবেশ করতে পারবে না। কিন্তু রাস্তার পাশেই তো কেন্দ্র। আপনি কী রাস্তা দিয়ে লোক চলাচল বন্ধ করে দেবেন? আপনিই তো মারতে যাবেন।

তাছাড়া আইনের সবকিছুই তো ওইভাবে বাস্তবায়ন করা যায় না। লিটারেলি বাস্তবায়ন করা যায় না। এটা হলো বাস্তবতা যে, রাস্তার পাশেই স্কুল। সেখানে কেন্দ্র। এখন রাস্তা ৪০০ গজের মধ্যে পড়ে গেছে। এখন কী রাস্তা বন্ধ করে দেব? রাস্তা বন্ধ করে দেয়া যায়? বাসিন্দাদের যেতে আসতে দিতে হবে না?

পাবনা-৪ আসনে ৬৫ শতাংশ ভোটের হার যৌক্তিক মনে করেন কি না এমন প্রশ্নে ইসি সচিব বলেন, আমি তো সেখানে ছিলাম না। কাগজপত্রে এসেছে নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। ডিসি-এসপির সঙ্গে, নির্বাচন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছি, তারা বলেছেন নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। আমাদের কাছে কাগজ এসেছে ৬৫ শতাংশ ভোট পড়েছে, সেটাই আমি বিশ্বাস করি।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *