পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) আসনে আওয়ামীলীগে ঘরে বাইরে দ্বিমুখী সংঘাত : বিএনপিতে অস্থিরতা

এসএম মোফাজ্জল হোসেন বাবু: ঘরে বাইরে দ্বিমুখী সংঘাতে আছেন পাবনা-৪ আসনের এমপি ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলু। ৬ জন তৃণমূল নেতার পাশাপাশি নৌকা মার্কায় ভোটে লড়তে মাঠে তার মেয়ে-জামাই দুজনই। বিপরীতে বিএনপিতে মনোনয়ন প্রত্যাশী ৬ জন প্রার্থী।

জানা গেছে, পাবনার ঈশ্বরদী-আটঘরিয়ার ৪ বারের এমপি শামসুর রহমান শরীফ ডিলু বর্তমানে ভূমিমন্ত্রী। প্রবীণ এই নেতা ও তার পরিবারের কর্মকান্ডে সমলোচনা আছে তৃণমূলের একাংশের নেতাকর্মীদের। এবার আওয়ামীলীগে নতুন মুখ দেখতে চান তারা।

এদিকে মনোনয়ন দৌড়ে শক্ত অবস্থান জানান দিচ্ছেন সাবেক ডিজিএফআই এর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল (অব:) নজরুল ইসলাম রবি, সাবেক এমপি পাঞ্জাব আলী বিশ্বাস, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম লিটন, সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী রবিউল আলম বুদু, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা নুরুজ্জামান বিশ্বাস।

মনোনয়ন নিয়ে অসস্তি আছে মন্ত্রীর পরিবারেও। বাবার সঙ্গে দীর্ঘদিন সক্রীয় মেয়ে মাহজেবিন শিরিন প্রিয়া, তার স্বামী ঈশ্বরদী পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ঈশ্বরদী পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টুরও রাজনৈতিক প্রভাব স্পষ্ট। মনোনয়ন চাইবেন তারা দুজনই।

আবুল কালাম আজাদ মিন্টু বলেন, চাওয়ার বিষয়টা গুরুত্বপূর্ণ নয়। প্রধানমন্ত্রী যাকেই মনোনয়ন দেবেন তারা ঐক্যবদ্ধ ভাবে তারই পক্ষে কাজ করবেন বলে জানান তিনি।

ভূমিমন্ত্রী কন্যা মাহজেবিন শিরিন প্রিয়া বলেন, তিনি মনোনয়ন পেলে তার বাবা, মা, ভাই, স্বামীসহ সবশ্রেণীর, সর্বপেশার মানুষ তার নির্বাচন করবের বলে জানান তিনি। তবে সব সমলোচনার উড়িয়ে দিয়ে স্বজনদের ভোটে দাড়ানো নাকচ করেছেন ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলু।

এদিকে আগামী নির্বাচনকে আন্দোলনের অংশ হিসেবে দেখছে বিএনপি। তাই রাজপথ ও ভোটের প্রস্তুতি নিচ্ছে একসঙ্গে। বিএনপি থেকে মনোনয়ন দৌড়ে আছেন, সাবেক এমপি সিরাজুল ইসলাম সরদার, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, শিল্পপতি আকরাম আলী খান সঞ্জু, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক জাকারিয়া পিন্টু, ঈশ্বরদী উপজেলা বিএনপির সভাপতি শামসুদ্দিন আহমেদ মালিথা, সাবেক পৌর মেয়র মোখলেসুর রহমান বাবলুর নাম শোনা যাচ্ছে।

স্থানীয়রা মনে করছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব মনোনয়ন পাওয়ার জন্য এলাকায় ব্যাপক যোগাযোগ রাখছেন। দলীয় কার্যক্রম করে যাচ্ছেন তার অনুসারিদের নিয়ে। তার মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা থাকলেও ছেড়ে দেবে না সিরাজ সরদার গ্রুপ।

সাবেক এমপি সিরাজুল ইসলাম সরদারও বসে নেই তিনিও এলাকায় ব্যাপক গণ সংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। এই দুজনের একজন মনোনয়ন পেলে অপরজন বিরোধীতা করবে বলে গুঞ্জন রয়েছে।

জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক এমপি সিরাজুল ইসলাম সরদার বলেন, তারা ঐক্যবদ্ধ আছেন। দেশের মানুষও এই সরকারের বিরুদ্ধে তাদের তীব্র ক্ষোভ রয়েছে। সাধারণ মানুষ মনে করছে তারা নির্বাচনের মাধ্যমে তাদের এই ক্ষোভ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারবে বলে জানান তিনি।

ঈশ্বরদী ও আটঘরিয়া উপজেলা নিয়ে গঠিত এই আসনে বর্তমানে মোট ভোটার রয়েছেন ৩ লাখ ৫৭ হাজার ৫৪ জন এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৮০ হাজার ২৮০ এবং মহিলা ভোটার ১ লাখ ৭৬ হাজার ৭৭৪ জন।

রুপপুর পারমানবিকের কাজ শুরু হওয়ার পর পরই ঈশ্বরদীতে যে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা শুরু হয়েছে তা এগিয়ে নিতে একজন সৎ এবং জনবান্ধব প্রার্থী চান এখানকার ভোটাররা। তারা বলছেন, যিনি অনিয়ম এবং দুর্ণীতির বাইরে থেকে পাবনা-৪ এলাকার উন্নয়নে কাজ করবেন তাকেই এবার ভোট দেবেন তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *