পাবিপ্রবির শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ প্রশাসনিক ভবনে তালা : ভিসি অবরুদ্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক: পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে ভাইস চ্যান্সেলরকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন। পরে তিনি প্রশাসনিক ভবন থেকে বের হয়ে বাস ভবনের দিকে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাকে ধাওয়া করে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। পরে তারা ভিসির বাসভবনও অবরুদ্ধ করে রেখেছেন। শিক্ষার্থীরা আজ সোমবার সকাল সাড়ে ১২থেকে ক্যাম্পাসের প্রবেশের মূল ফটক ও প্রশাসনিক ভবন আটকিয়ে চয়দফা দাবী আদায়ের জন্যে এই বিক্ষোভ প্রর্দশন করে।
পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওবায়দুল হক জানান, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের বিষয়টি প্রশাসন আমাদের অবহিত করলে আমরা সেখানে এসআই মনিরের নেতৃত্বে একটি দল পাঠানো হয়েছে। তবে আইন শৃংখলা স্বাভাবিক আছে বলেও তিনি দাবী করেন।
এ বিষয়টি নিয়ে পাবনা সদর থানার এসআই মনির বলেন, ভাই একটু ঝামেলায় আছি একটু পরে কথা বলি।
একাধিক শিক্ষার্থীরা জানান, দীর্ঘদিন ধরে আমরা বিশ্ববিদ্যাল প্রশাসনের নিকট ছয় দফা দাবী করে আসছি, দাবী মেনে নেবেন বলে আম্বাসও দিয়েছেন। আথচ গত ৩/৪ মাস অতিবাহিত হলেও তারা বিশ্ববিদ্যঅলয় প্রশাসন কোন প্রকার কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহন করেন নাই। ইতিপূর্বেও আমরা ক্যাম্পাসে দীর্ঘদিন ধারাবাহিক ভাবে আমাদের দাবী আদায়ের লক্ষে আন্দোলন করেছি। প্রতিবার আমাদের আশ্বাস দিয়ে আন্দোলন থামিয়ে দিয়েছে, কিন্তু দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও আমাদের দাবী বাস্তোবায়িত হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের খেয়াল খুশিমতো ক্যাম্পাস পরিচালনা করে অঅসছেন। ভিসি স্যার আমাদের সাথে ফান করছেন। জেলহত্যা দিবসের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ দিনে তার বাসভবন রাজশাহীতে ৩/৪টি গাড়িতে কর্মকর্তা ও প্রশাসনের লোকজনকে নিয়ে দায়সারা ভাবে দিবস পালন করেন। এতে আমরা সাধারন শিক্ষার্থীরা দিবসটির তাৎপর্য সম্পর্কে জানতে ব্যার্থ হলেও তার কোন খেয়াল নেই বিষয়টি নিয়ে। তিনি একজন অযোগ্য ভিসি, প্রশাসন চালানোর মতো দক্ষ নয়, তাই আমরা ভিসি স্যারসহ সকল প্রশাসনিক পদধারীদের পদত্যাগ দাবী করছি।
শিক্ষার্থীদের দাবী গুলো হলো: ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষসহ পরবর্তী সকল ব্যাচ সমূহের অডিন্যান্সের আওতাভুক্ত করা, হলের ডাইনিংয়ের খাবার উন্নয়নের জন্য ভর্তূকি প্রদান, ক্লাস রুম ও চেয়ার সংকট দূর করা, পরিবহন সংকট, ক্যাম্পাসে ওয়াইফাই এর ব্যাবস্থা করা এবং শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থে পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপনের দাবী শিক্ষার্থীদের।
এদিকে দুপুর আড়াইটার দিকে ভিসি তার অফিস কক্ষ থেকে বের হয়ে বাস ভবনের দিকে যাওয়ার চেষ্টা করলে শিক্ষার্থীরা তার পিছু নিয়ে ধাওয়া করে ইটপাটকেট ও জুতা সেন্ডেল নিক্ষেপ করেন। পরে ভিসি ড. রোস্তম আলী দৌড়ে বাস ভবনে গিয়ে আশ্রয় নিলে শিক্ষার্থীরা বাসভবনও অবরুদ্ধ করে রেখেছে।
এ বিষয়ে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি আওয়াল কবির জয় বলেন, বিষয়টি উদ্বেগের তবে এটি প্রত্যাশিত নয়, আশা করি ভিসি স্যার দ্রুত এই অবস্থা নিরসনের জন্যে উদ্যোগ নেবেন।
এ বিষয় নিয়ে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ড. রোস্তম আলী ফরাজীর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি লাঞ্চিত হওয়ার বিষয়টি এড়িয়ে যান এবং ধাওয়ার কথা বললে তিনি বলে আমি পিছনে না তাকিয়ে দ্রুত বাসা চলে আসি। এখন পুলিশের সাথে বৈঠক করছেন বলে মুঠোফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছেন।
তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগের চেয়ারম্যান ও ডীনদের নিয়ে জরুরী বৈঠকের আহবান করেছেন ভাইস চ্যান্সেলর বলে জানিয়েছেন কয়েকজন বিভাগীয় চেয়ারম্যান।
পাবনা সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার এবনে মিজান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ছাত্ররা তাদের দাবী নিয়ে আন্দোলন করছেন। ভিসি স্যারের সাথে আমার কথা হয়েছে তিনি বৈঠকের মাধ্যমে সম্যার সমাধান করবেন। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *