পুনর্বাসন ও ক্ষতিপুরনের দাবিতে ঈশ্বরদীতে বিক্ষোভ সমাবেশ

পাবনা প্রতিনিধি : পূর্ব নির্ধারিত ঘোষণা অনুযায়ী পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার পাকশীতে উচ্ছেদের নোটিশ ও মাইকিং করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যে বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে এ বিষয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্তও ঘোষণা করা হয়েছে। ঘোষনা অনুযায়ী পাকশীর এমএস কলোনী, বাবু পাড়া, পাকশী বাজার এলাকা, ঝাউতলা, হরিজন কলোনীসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করার প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে রেল কর্তৃপক্ষ।

এদিকে এই উচ্ছেদ পরিচালনার আগে পূনর্বাসন ও ক্ষতিপুরনের দাবি জানিয়েছেন উচ্ছেদের আওতায় পড়া ভূমিহীন পাকশীবাসী। সোমবার (০৮ মার্চ) এসব দাবিতে পাকশীতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। উচ্ছেদ করার আগে তাদের ক্ষতিপুরণ ও পুনর্বাসন করার দাবি জানিয়েছেন তারা।

পাকশী আমতলা এলাকায় বিক্ষোভ শেষে পাকশী কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশে ক্ষতিগ্রস্তরা বলেন, সরকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেবার প্রস্তুতি নিচ্ছে, পাকশীর এসব এলাকায় ৫ শতাধিক শিক্ষার্থী এবং এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী রয়েছে অর্ধ শতাধিক, সামনে আসছে পবিত্র রমজান মাস, করোনাকালের এই দুঃসময়ে বিরুপ পরিস্থিতির মধ্যে ক্ষতিপুরণ ও পুণর্বাসন না করে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করলে পাকশীতে উচ্ছেদের আওতায় পড়া কয়েক হাজার মানুষ কোথায় যাবে ?

বিক্ষুব্ধ পাকশীবাসী বলেন, উচ্ছেদের আগে পাকশীবাসীকে পুনর্বাসন ও ক্ষতিপুুরণ প্রদানের আবেদন সংবলিত চিঠি স্থানীয় এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নুরুজ্জামান বিশ্বাসের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে। পাকশীবাসীর সে আবেদনের কোন সুরাহা হওয়ার আগেই আবারো উচ্ছেদ প্রক্রিয়া শুরু করায় ফের আতঙ্কের মুখে পড়েছেন পাকশীবাসী। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে এসব বিষয় বিবেচনা করে উচ্ছেদ স্থগিত রাখার অনুরোধ জানিয়ে বক্তারা বলেন, এখনই উচ্ছেদ শুরু করলে একদিকে যেমন মানবিক বিপর্যয়ের মুখে পড়বে পাকশীবাসী অন্যদিকে বাংলাদেশের মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাবে পাকশীর ঐতিহ্য।

এর আগে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত ঐতিহাসিক পাকশীকে রক্ষা, উচ্ছেদের আগে প্রায় দশ হাজার বাসিন্দাদের পুনর্বাসন, এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত পাকশীবাসীকে উচ্ছেদ না করার দাবিতে সোমবার পাকশীতে আয়োজিত আন্দোলনে হাজারো নারী-পুরুষ, শিশু ও শিক্ষার্থীরাও অংশগ্রহণ করেন। সেখানে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়।

পরে সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন এই আন্দোলনের আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ রফিকুল ইসলাম রফিক। বক্তব্য দেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মোহাম্মদ রশিদুল্লাহ্, পাকশী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুল ইসলাম, অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, পাকশীর চেয়ারম্যান এনামুল হক বিশ্বাস, আওয়ামীলীগ নেতা আনোয়ারুল ইসলাম বাবু, পাকশী বাজার কমিটির সভাপতি গোলাম কিবরিয়া, সাবেক ইউপি মেম্বার ও জাসদ নেতা মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটি কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আমজাদ হোসেন বাবু, পাকশী বাজার বণিক সমিতির সভাপতি গোলাম কিবরিয়া, খেলাঘরের সংগঠক সিরাজুল ইসলাম সিরু, সমকাল সুহৃদ সমাবেশের সভাপতি আর.কে.বাবু, ইউপি সদস্য মনোয়ার হোসেন লিটন, বেলাল আহমেদ কালু, আসমা খাতুন, একরামুল হক দোলন, গৃহবধু রেনু বেগম, শিক্ষার্থী ফাতেমা আক্তার পলি প্রমুখ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *