পোপ ঐতিহাসিক সফরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে

আর্ন্তজাতিক: খ্রিস্টান ক্যাথলিক সম্প্রদায়ের প্রধান যাজক হিসেবে প্রথমবারের মতো আরব উপদ্বীপ সফরে গিয়েছেন পোপ ফ্রান্সিস।
ইয়েমেন যুদ্ধের বিষয়ে কঠোর নিন্দা জানানোর কয়েক ঘন্টা পর রোববার তিনি ইয়েমেনের যুদ্ধে অন্যতম নেতৃস্থানীয় সামরিক ভূমিকা পালনকারী দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) মাটিতে পা রাখেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।
পোপ ফ্রান্সিস আবু ধাবির উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার কিছুক্ষণ আগে ভ্যাটিকান সিটিতে রবিবাসরীয় ভাষণে বলেছেন, অত্যন্ত উদ্বেগের সঙ্গে তিনি ইয়েমেনের মানবিক সংকটের দিকে নজর রাখছেন।
ইয়েমেনের লাখ লাখ ক্ষুধার্ত লোকের জন্য ত্রাণ সহায়তা সরবরাহে সাহায্য করতে ও শান্তি চুক্তি মেনে চলতে সব পক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।
সেন্ট পিটার্স স্কয়ারে জমায়েত হওয়া লাখো মানুষের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, “এই শিশুদের ও তাদের পিতামাতাদের কান্না খোদার কাছে পর্যন্ত চলে গেছে। আসুন আমরা জোরালোভাবে প্রার্থনা করি, কারণ তারা শিশু যারা ক্ষুধার্ত, তারা তৃষ্ণার্ত, তাদের ওষুধ নেই আর তারা মৃত্যুর বিপদের মধ্যে আছে।”
ইয়েমেন বিষয়ে পোপের বার্তাকে স্বাগত জানিয়েছে ইউএই এবং যে শান্তিচুক্তির উল্লেখ পোপ করেছেন তা ফলপ্রসু হবে বলে ‘তাদের বিশ্বাস’ বলে এক টুইটে জানিয়েছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনওয়ার গারগাশ।
“আসুন এর বাস্তবায়ন নিশ্চিত করি আমরা এবং ২০১৯-কে ইয়েমেনের শান্তিবর্ষতে পরিণত করি,” পোপ আবু ধাবিতে নামার পর বলেছেন গারগাশ।
প্রায় চার বছর ধরে চলা ইয়েমেনের যুদ্ধে লড়াইরত পক্ষগুলো প্রথমবারের মতো বড় ধরনের একটি শান্তি আলোচনায় ডিসেম্বরে অস্ত্রবিরতি করতে সম্মত হয়।
ইয়েমেনের লড়াইয়ে হাজার হাজার লোক নিহত হয়েছেন এবং প্রায় ১০ লাখ লোক দুর্ভিক্ষের মুখে আছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। এদের বেঁচে থাকা নির্ভর করছে সাময়িক যুদ্ধবিরতি বাস্তবায়নের ওপর। কারণ দেশটির প্রধান বন্দর শহরকে কেন্দ্র করে সর্বাত্মক যুদ্ধে দেশটিতে আন্তর্জাতিক ত্রাণ প্রবেশে পথ বন্ধ করে দিয়েছিল।
আবু ধাবিতে পোপ ফ্রান্সিসকে স্বাগত জানিয়েছেন ক্রাউন প্রিন্স শেখ মোহাম্মদ বিন জায়িদ আল নাহিয়ান। তিনি পোপকে সঙ্গে করে মিশরের আল আজহার মসজিদ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রান্ড ইমাম শেখ আহমেদ আল তৈয়বের কাছে নিয়ে যান। সাক্ষাতে পোপ ও গ্রান্ড ইমাম পরস্পরকে আলিঙ্গন করেন।
সোমবার পোপের সঙ্গে ক্রাউন প্রিন্স শেখ মোহাম্মদ ও গ্রান্ড ইমাম শেখ আহমেদ বৈঠক করবেন বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *