বরের বাড়িতে কনেযাত্রী

মেহেরপুর : চিরচারিত রীতি ভেঙ্গে এবার একটি ব্যতিক্রমী বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে মেহেরপুরের গাংনীতে। শনিবার রীতিমত বরের বাড়িতে কনেযাত্রী হাজির হয়ে বরকে বিয়ে করে কনের লোকজন নিয়ে গেল তাদের বাড়িতে। অবশ্য এ বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্য’র সৃষ্টি হয়েছে।

বরের বাবা মেহেরপুর জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারন সম্পাদক কমরেড মাবুদ বলেন আমি অত্যান্ত খুশি কারণ আমার ছেলের বিয়েতে আমি খরচ করব এখানে কনে পক্ষের খরচ যাতে না হয় এবং নারী পুরুষের মাঝে যেন কোন বৈষম্য না থাকে এই দিক বিবেচনা করে চিরচারিত রীতির বাইরে গিয়ে এভাবে বিয়ের ব্যবস্থা করেছি।
কনে চুয়াডাঙ্গা জেলার হাজরাহাটি গ্রামের কামরুজ্জামানের মেয়ে খাদিজা আক্তার অবশ্য এ রীতিটাকে স্বাগত জানিয়ে বলেন পুরুষ শাসিত সমাজে একটি বিয়েতে কনে পক্ষকে অনেক ঝামেলা পোহাতে হয়। এ বিয়ের মাধ্যমে এ রীতিটাকে ভেঙ্গে যে নতুন নীয়মে বিয়ে হচ্ছে এটাকে আমি স্বাগত জানাই।

বর তরিকুল ইসলামও এ বিয়েকে স্বাগত জানিয়ে তিনি বলেন এটা একটা আনন্দের খবর যে বরের বাড়িকে কনেযাত্রী এসে বরকে কনের বাড়িতে নিয়ে যাবে সেখানে আবার বউভাত না হয়ে বরভাত অনুষ্ঠান হবে। বিষয়টি বেশ আনন্দের এবং তিনি মনে করেন পুরাতন রীতি ভেঙ্গে এ নতুন নীয়মে বিয়ে হওয়া উচিৎ।

বাংলাদেশ ওয়ার্কাস পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির পলিট ব্যুরোর সদস্য বরের নিকট আন্ত্রীয় নূর আহম্মেদ বকুল বলেন, আগেকার বিয়ের রীতি ভেঙ্গে এখানে যে ব্যতিক্রমী বিয়ের আয়োজন করা হয়েছে তাকে আমি সাধুবাদ জানাই। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, নারী পুরুষের যে বৈষম্য আমাদের সমাজে রয়েছে সেটা দূর হবে যদি এমনভাবে বিয়ে হয়। তাছাড়া বিয়ে বাড়িতে এতদিন যে কনে পক্ষের একটা বিশাল খরচ হয়ে আসত সেটা দূর হবে।

তিনি বলেন পুরুষ শাসিত সমাজে যে রীতিটা চালু হয়ে এসেছে সেটাকে ভেঙ্গে সকলে নারী-পুরুষ বৈষম্য দূর করা উচিৎ। বিয়েতে সাবেক সাংসদ,উপজেলা চেয়ারম্যান,সহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার আন্তত ৫ শতাধিক অতিথীকে নিমন্ত্রন করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *