বাংলাদেশেই আমরা কোনো সমর্থন পাই না: রোহিত

স্পোর্টস: ক্রিকেট বিশ্বের যে কোনো প্রান্তে গেলেই মাঠে প্রবল দর্শক সমর্থন পেয়ে থাকে ভারত। ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার মত দেশগুলিতে অনেক সময় স্বাগতিক দর্শকের চেয়েও বেশি দেখা যায় ভারতীয় দর্শক। তবে রোহিত শর্মা ব্যতিক্রম দেখেছেন বাংলাদেশে। ভারতের তারকা ব্যাটসম্যান বলছেন, বাংলাদেশে তারা একদমই সমর্থন পান না।

তামিম ইকবালের সঙ্গে শুক্রবার রাতে ফেইসবুক আড্ডায় মজা করে এই কথা বলেন রোহিত। বাংলাদেশ ও ভারতের সমর্থকরা কতটা আবেগপ্রবণ, দুজনের কথায় উঠে আসে বারবার। গত বিশ্বকাপে বাংলাদেশ ও ভারতের লড়াইয়ে রোহিতের ক্যাচ ছেড়েছিলেন তামিম। রোহিত এরপর করেছিলেন দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি। সেই প্রসঙ্গেই তামিম বলছিলেন, ক্যাচ ফেলে দেওয়ার পর কতটা সমালোচনা হজম করতে হয়েছে তাকে। দুই দেশের দর্শকদের আবেগ নিয়ে এরপর রোহিত শোনান তার ভাবনা।

“এটা অনেকে বুঝতে চায় না যে ম্যাচ খেলতে নামলে সবাই জিততে চায়। কেউ মাঠে নেমে ইচ্ছে করে ক্যাচ ফেলে না বা খারাপ খেলতে চায় না। সবাই ভালো খেলতে চায়। কিন্তু ভারত ও বাংলাদেশের সমর্থকরা খুবই আবেগপ্রবণ। আমরাও যখন কোনো ভুল করি, শুধু মিডিয়া নয়, লোকজনও আমাদের সমালোচনা করে। বাংলাদেশেও একই হওয়ার কথা।

বাংলাদেশে আমি গিয়েছি এবং দেখেছি তারা কতটা আবেগপ্রবণ খেলা নিয়ে, বিশেষ করে মাঠে আসা দর্শকরা।” এরপর রোহিত বলেন, বাংলাদেশে খেলতে এসে তার অভিজ্ঞতার কথা। “বাংলাদেশে গিয়ে আমরা যখন মাঠে যাই, তখন অবিশ্বাস্য চিত্র দেখি। ভারতীয় দল মাঠে দর্শক সমর্থন না পেতে অভ্যস্ত নয়! বাংলাদেশ একমাত্র জায়গা, যেখানে আমরা কোনো সমর্থনই পাই না। হতে পারে, ১০০-২০০ দর্শক আমাদের থাকে।

কিন্তু বিশ্বের অন্য যে কোনো জায়গায় মাঠে আমরা প্রচুর সমর্থন পাই। বাংলাদেশে একটুও সমর্থন পাই না।” তামিম তখন হাসতে হাসতে বলছিলেন, “দর্শকরা পুরোপুরি আমাদের পাশে থাকে, সমর্থন দেয়।” রোহিতও হাসিমুখে জানালেন, সমর্থন না থাকায় কোনো অভিযোগ নেই তার। বরং বাংলাদেশের দর্শকদের তিনি জানালেন সম্মান। “মাঠে যারা আসেন, সবার প্রতি আমার টুপি খোলা অভিনন্দন। আমি দেখি, তারা কতটা উপভোগ করে।

তারা কতটা প্রবলভাবে চায় তোমাদের জিততে দেখতে। আর বাংলাদেশ দলও ১০-১৫ বছর আগে যা ছিল, এখন পুরোপুরি বদলে গেছে। তোমরা এখন যখন মাঠে নামো, তোমাদের মধ্যে লক্ষ্য ও তাড়না দেখা যায়। এটা ভিন্ন এক বাংলাদেশ দল।

এটা শুধু আমি নই, সবাই বলে। তোমাদের পারফরম্যান্সেই সেটা দেখেছি গত বিশ্বকাপে ও গত ২-৩ বছরের পারফরম্যান্সে।”

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *