বেড়ায় চিকিৎসা না পেয়ে শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, বেড়া : পাবনার বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা না পেয়ে ৬ মাস বয়সের খুশি নামের একটি শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ (বুধবার ৮ এপ্রিল) সকাল ১০টার দিকে বিনা চিকিৎসায় হাসপাতালের বারান্দায় শিশুটির মৃত্যু হয়।

পরিবারের লোকজনের অভিযোগ শিশুটিকে ভর্তির জন্য বারবার আকুতি জানানো সত্ত্বেও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাকে ভর্তির ব্যবস্থা নেয়নি ও প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়নি।

শিশুটির পরিবারের লোকজন জানায়, বেড়া পৌর এলাকার সানিলা শাহ্পাড়া মহল্লার দিনমজুর খোরশেদ আলমের ছয় মাসের শিশুকন্যা খুশি আক্তার গতকাল মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) ডায়রিয়ায় ও জ্বরে অসুস্থ হয়ে পড়ে। ওইদিন সন্ধ্যা সাতটার দিকে শিশুটিকে তার পরিবারের লোকজন বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসেন। শিশুটিকে সেখানে ভর্তির জন্য পরিবারের লোকজন আকুতি জানালেও তাকে ভর্তি করা হয়নি বলে অভিযোগ। এর পরিবর্তে শিশুটিকে ভালোভাবে না দেখেই সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক একটি ব্যবস্থাপত্র লিখে দিয়ে তাকে বাড়ি নিয়ে যেতে বলেন। পরিবারের লোকজন শিশুটিকে বাড়ি নিয়ে আসার পর তার অবস্থার আরও অবনতি হয়।

এতে আজ (৮ এপ্রিল) সকাল ১০টার দিকে পরিবারের লোকজন আবারও তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। এ সময়েও পরিবারের লোকজন শিশুটিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে অক্সিজেন দেওয়ার আকুতি জানাতে থাকেন। কিন্তু কর্তব্যরত চিকিৎসক তা না করে শিশুটিকে বাড়িতে নিয়ে যেতে বলেন। এ সময় তাকে কোনো চিকিৎসাও দেওয়া হয়নি বলে পরিবারের লোকজনের অভিযোগ করেন। এক পর্যায়ে বেলা ১১টার দিকে শিশুটি বারান্দাতেই মারা যায়। শিশুটির বাবা খোরশেদ আলম বলেন, আমি আমার বাচ্চাটাকে মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) সন্ধ্যা ও আজ (৮ এপ্রিল) সকালে দুইবার হাসপাতালে নিয়্যা আইস্যাও কুনু চিকিৎসা পাইল্যাম না। তারা (চিকিৎসকেরা) করোনার ভয়ে আমার বাচ্চার কাছে আসেনাই, কুনু চিকিৎসা দেয়নাই।

তবে সকালে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে দায়িত্ব পালনকারী চিকিৎসক শারমিন সুলতানা বলেন, তাঁরা যখন আমাদের কাছে বাচ্চাটিকে নিয়ে আসে তখন তার হৃদস্পন্দন ছিল না। এর পরেও আমরা তাঁদেরকে শান্তনা দেওয়ার জন্য বাচ্চাটিকে অক্সিজেন দিয়েছি। অথচ তাঁরা বাচ্চাটিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়নি বলে মিথ্যা অভিযোগ দিচ্ছে।

বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সরদার ডাক্টার মোঃ মিলন মাহমুদ বলেন, বাচ্চাটির নিওমোনিয়ার লক্ষণ ছিল। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দিয়েছেন।এর পরেও যদি কারও কোনো গাফিলতি থাকে তবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আসিফ আনাম সিদ্দিকী বলেন, শিশুটিকে ঠিকমতো চিকিৎসা দেওয়া হয়নি বলে মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি। এ ব্যাপারে কারো অবহেলা আছে কিনা সে ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সাহেবকে খোঁজ নিয়ে আমাকে জানাতে বলেছি।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *