বেড়ায় পাটের বাজার নিন্মমুখী

নিজস্ব প্রতিবেদক, বেড়া : প্রথমদিকে ভালো দাম পেলেও কোরবানির ঈদের পরেই বেড়ায় পাটের দাম কমেছে মণ প্রতি তিন থেকে চারশ টাকা। ঈদের আগে মণ প্রতি পাট বিক্রি হয়েছে ২ হাজার থেকে ২ হাজার ১শ টাকায় সেখানে বর্তমানে ব্যবসায়ীরা পাট কিনছে ১৬শ টাকা মণ হিসেবে।

সোনালী আঁশ হিসেবে পরিচিত পাটের বাম্পার ফলন হওয়ায় পাবনা বেড়ার পাট চাষীদের মুখে হাসি ফুটেছে। চলতি মৌসুমে পাট চাষের অনূকুল আবহাওয়া, পাট পানিতে ভিজিয়ে রাখার জন্য পর্যাপ্ত বৃষ্টি এবং পোকার আক্রমণ না হওয়ায় বিগত বছরগুলোর তুলনায় পাটের ফলন এবার অনেক ভালো হয়েছে। বেড়া উপজেলা দীর্ঘদিন ধরে পাট ব্যবসায়ের কেন্দ্রস্থল হিসেবে পরিচিত। বেড়া পৌর এলাকার পাট ব্যবসায়ের কেন্দ্র পাটপট্রিতে পাটের গুদামগুলো পাটের স্বর্ণযুগের স্বাক্ষর বহন করে। এখানে পাটের সাথে জড়িত থাকে বহু মানুষের জীবিকা। এ ছাড়া অন্যান্য বছরগুলোতে পাটের ন্যয্য দাম না পাওয়া সহ নানা কারণে পাট চাষীরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছিল। অনেকে পাটের স্থলে অন্য ফসল আবাদের দিকে ঝুকছিল। তবে এবছর ভাল উৎপাদন হওয়ায় এবং বাজারে ভালো দাম পেলে কৃষকের মুখে হাসি ফুটবে। উপজেলার চাকলা গ্রামের কৃষক আরজান মোল্লা জানান, আমার চার বিঘা জমিতে এবছর পাটের আবাদ করেছিলাম। উৎপাদন ভালো হয়েছে। প্রথম দিকে বাজারে প্রতি মণ পাট ১৮০০ থেকে ২০০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তাছাড়া জ¦ালানী হিসেবে ব্যবহার করা পাটখড়িরর দামাও ভাল পাওয়া যাচ্ছে। এ দাম আরও বাড়বে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে ২২১০ হেক্টর জমিতে পাটের আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হলেও লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যায়। পাট চাষ হয়েছে ২৮৬০ হেক্টর জমিতে। বেড়ার প্রতিটি ইউনিয়নেই কম বেশী পাটের আবাদ হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *