বেড়ায় ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে ‘তথ্য আপা’ ডিজিটাল সেবা

পিপ (পাবনা) : “শেখ হাসিনার বারতা, নারী-পুরুষ সমতা, শেখ হাসিনার সহায়তায়, তথ্য আপা পথ দেখায়” এই শ্লোগান নিয়ে তথ্য আপারা শুরু করেছে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে মহিলা ও শিশুদের ক্ষমতায়ন প্রকল্পের কার্যক্রম।

পাবনার বেড়া উপজেলার ডিজিটাল সেবা তথ্য আপা’রা দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এলাকার নারীদের কাছে। মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় মহিলা সংস্থার অধীনে বাস্তবায়নাধীন ‘তথ্য আপা’ ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তির মাধ্যমে গ্রামের তৃণমূল্য পর্যায়ের মহিলা ও শিশুদের ক্ষমতায়ন প্রকল্পের (২য় পর্যায়) আওতায় এবং উপজেলা তথ্যকেন্দ্রের আয়োজনে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে উপস্থিত হয়ে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, আইন, ব্যবসা, জেন্ডার এবং কৃষিবিষয়ক বিভিন্ন তথ্যসেবা প্রদান করছে। গ্রামের নারীদের কাছে ‘তথ্য আপা’ হিসেবে পরিচিত আপারা বাল্যবিয়ে, সন্ত্রাস, মাদক ও জঙ্গিবাদসহ বিভিন্ন বিষয়ে সচেতনতামূলক উঠান বৈঠকও করছেন। উঠান বৈঠক উপস্থিত থাকেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, কৃষি কর্মকর্তা, মৎস্য কর্মকর্তা, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা কিংবা সমাজ সেবা কর্মকর্তা। এসব সরকারি সেবাগুলো জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছাতে সার্বিক সহযোগিতা করছেন তথ্য আপারা। বেড়া উপজেলায় দুইজন তথ্য আপা নিয়মিত বাড়ি বাড়ি গিয়ে এ সেবা প্রদান করছেন।

উপজেলা তথ্য সেবা সহকারী (তথ্য আপা) শিউলি সরকার ও সোহানী আফ্রিন জানান, নারীর ক্ষমতায়নে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারে। তথ্যকেন্দ্রে ইন্টারনেটের মাধ্যমে যোগাযোগ, বিভিন্ন বিশেষজ্ঞের মতামত গ্রহন, প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা, উপজেলার সরকারি সেবা গুলোর সহজলভাতা নিশ্চিতকরণ, ভিডিও কনফারেন্স, ই-লানিং, ই-কমাস, ইত্যাদি কার্যক্রম সম্পন্ন করছেন। এ ছাড়া বাড়িতে গিয়ে বিনামূল্যে ব্লাড প্রেসার, ডায়াবেটিস পরীক্ষা ও ওজন পরিমাপ ও বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের প্রধানের সাথে স্কাইপ ফোনের মাধ্যমে ফেস টু ফেস কথা বলিয়ে দেওয়ার কাজ করছেন।

বেড়া উপজেলা তথ্য সেবা কর্মকর্তা (তথ্য আপা) মোছাঃ সুমনা আক্তার জানান, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির মাধ্যমে মহিলাদের ক্ষমতায়ন প্রকল্পটি ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাস থেকে বেড়ায় তথ্য সেবা প্রদান কার্যক্রম শুরু করে। মূল উদ্দেশ্য গ্রামীন সুবিধাবঞ্চিত মহিলাদের তথ্য প্রযুক্তিতে প্রবেশাধিকার এবং তথ্য প্রযুক্তি ভিত্তিক সেবা প্রদানের মাধ্যমে মহিলাদের ক্ষমতায়ন করা। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে বেড়া উপজেলায় নিয়মিত ভাবে দুইজন তথ্য আপা এ সেবা প্রদান করছেন। ল্যাপটপ ব্যবহারের মাধ্যমে প্রকল্প এলাকাধীন নারী ও শিশুদের ইন্টারনেটের মাধ্যমে চাকরির খবর, বিভিন্ন পরীক্ষার ফলাফল, সরকারি সেবা বিনামূল্যে সরবরাহ করছেন। মাসে তিন দিন উঠান বৈঠকের মাধ্যমে গ্রামীন মহিলাদের জীবন ও জীবিকা সম্পর্কিত নানান তথ্য দিয়ে থাকেন তথ্য আপারা।

ইউএনও আসিফ আনাম সিদ্দিকী জানান, বাংলাদেশের প্রায় অর্ধেক জনগোষ্ঠি নারী। অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে নারীর অংশগ্রহন ও ক্ষমতায়ন দেশের সার্বিক অগ্রগতির অন্যতম শর্ত। তথ্য আপা প্রকল্প এটা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের প্রকল্প। এটা পাঁচ বছর মেয়াদী। সরকারের বিশেষ প্রকল্পগুলোর মধ্যে এটা একটা। এটার উদ্দেশ্য হল গ্রামীণ নারীগোষ্ঠি যারা একেবারে গ্রাম প্রর্যায়ে আছেন সেই সকল মহিলাদের কাছে সরকারের ডিজিটাল সেবা পৌছে দেওয়া এবং পরিচিত করে তোলা তথ্য আপাদের কাজ। ইতিমধ্যে তারা বিনামূল্যে অনেকগুলো সফল উঠান বৈঠক করছেন। বৈঠকে আমি সহ উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত থাকেন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *