বেড়ায় মোল্লা গোষ্ঠির হামলা প্রামানিক গোষ্টির আহত ৪

পিপ (পাবনা) : পাবনা বেড়া উপজেলার চাকলা ইউনিয়নের বাগজান গ্রামের মোল্লা গোষ্টির হামলায় প্রামানিক গোষ্টির চার জন গুরুতর আহত হয়ে বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হওয়ার খবর পাওয় গেছে। সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে আটটায় উপজেলার চাকলা ইউনিয়নের বাগজান পূর্বপাড়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

থানা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বেড়া উপজেলার চাকলা ইউনিয়ন বিএনপির সেক্রেটারী বাগজান গ্রামের হাতেম মোল্লা ও চাকলা ৮ নং ওযার্ড আওয়ামীলীগের সাবেক সেক্রেটারী আলমগীর প্রামানিক সাথে দীর্ঘদিন ধরে দলিয় বিরোধ চলে আসছিল। এতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গত ১২ সেপ্টেম্বর আলমগীরের এর চাচাত ভাই ইন্দাদুল হক বেড়া হাটে রসুন বিক্রির জন্য যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হয়। আগে থেকেই ওঁত পেতে থাকা হাতেম মোল্লার ভাতিজা সিরাজুল ইসলাম সেফাউল, মজিদ, রওশন, আয়নুলসহ ১০-১২ জন লোহার রড দিয়ে ইন্দাদুলকে বেধরক মারপিট করে। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর সোমবার ইন্দাদুলে স্ত্রী বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে বেড়া মডেল থানায় মামলা করেন। এবং হাতেম মোল্লার ভাতিজা রওশন আলম ১২ সেপ্টেম্বর ৮ জনকে আসামি করে মামলা করেন। সেই মামলায় জামিন নিয়ে আসলে পুনরায় আবারও রওশন আলম বাদী হয়ে ১৮ ই সেপ্টেম্বরে ১৩ জনকে আসামী করে মামলা করেন। রওশনের ১৮ তারিখের করা মামলার জামিনের জন্য সোমবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে পাবনার উদ্দেশ্যে রওনা হলে বাগজান পশ্চিমপাড়া আবুল মাষ্টারের বাড়ির সামনে পৌঁছা মাত্রই হাতেম মোল্লার নির্দেশে তাঁর ভাতিজারা প্রামানিক গোষ্টির উপর ৮/১০ জন দেশিও অস্ত্রে শস্ত্রে সজ্জিত হইয়া হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাথারি হামলা চালায়। এতে প্রামানিক গোষ্টির ৪ জন গুরুতর আহত হয়। আহতরা হলেন, আতাব (৩৫)) সাইফুল ইসলাম (৪৪) নুর ইসলাম (৩৫) উভয় পিতা আব্দুল মান্নান ও একই গোষ্টির রহমান আলীর ছেলে রফিকুল ইসলাম (৩২)। আহতরা বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ব্যাপারে আলমগীর প্রামানিক জানান, হাতেম মোল্লা ও তাঁর ভাই কাদের মোল্লার গোষ্টি ২০১৬/ ১৭ সাল থেকেই দলীয় ভাবেই আমাদের উপর অত্যাচার হামলা মামলা নির্যাতন করে আসছে।
এ ব্যাপারে চাকলা ইউপি চেয়াম্যান ফারুক হোসেন জানান, এটা অত্যান্ত দুঃখজনক ঘটনা বিএনপির সমর্থন লোকজন আলমগীরদের উপর কয়েকবার হামলা চালিয়েছে। এতে প্রামানিক গোষ্টি আর্থিকভাবেও ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

এ ব্যাপারে বেড়া থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাশেম আজাদ এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,এ ঘটনায় থানায় কোন পক্ষ অভিযোগ দেয় নি অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। ঐ এলাকায় আইনশৃঙ্খলার অবনতি যাতে করে না হয় পুলিশ সজাগ দৃষ্টি রেখেছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *