ভাইরাল হওয়া ছবি নিয়ে ক্ষুব্ধ মিথিলা

বিনোদন: নিজেরদের ভাইরাল হওয়া ছবি নিয়ে ক্ষুব্ধ অভিনয়শিল্পী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। অন্যদিকে, বিষয়টিকে পাত্তাই দিচ্ছেন না ব্যান্ডসংগীতের শিল্পী জন কবির। গতকাল সোমবার বিকেলে একটি টিভি অনুষ্ঠানের সেটে সেলফি তোলেন তাঁরা। সন্ধ্যায় জন কবির ‘কনটেন্ট’ ক্যাপশন দিয়ে ছবিটি ফেসবুকে শেয়ার করলে সেটি ভাইরাল হয়ে যায়। আসতে থাকে অজ¯্র মন্তব্য, যার বেশির ভাগই কুরুচিপূর্ণ এবং আপত্তিকর ইঙ্গিতপূর্ণ।
জন ও মিথিলা দীর্ঘদিনের বন্ধু। একসঙ্গে অনেক নাটক ও টেলিছবিতে অভিনয় করছেন। এ পর্যন্ত দুজনের বহু ছবি প্রকাশিত হয়েছে ফেসবুক ও গণমাধ্যমে। সেসব ব্যবহার করে ব্যঙ্গ-বিদ্রƒপাত্মক স্টিকার, মেমে তৈরি হয়েছে। কিন্তু গতকালের ছবিটি যেন উসকে দিয়েছে একদল বিপথগামী অন্তর্জালবাসীকে। জন কবিরের অ্যাকাউন্ট থেকে তিন হাজারের বেশি শেয়ার হয়েছে ছবিটি। মন্তব্য করা হয়েছে এক হাজার তিন শতাধিক।
ফেসবুকে নিজেদের ছবিতে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যকে ‘সাইবার বুলিং’ বলে মনে করেন মিথিলা। আজ মঙ্গলবার দুপুরে তিনি বলেন, ‘নাটক, ইন্টারভিউ, বিজ্ঞাপনের কারণে একসঙ্গে আমাদের বহু ছবি আছে। আমি বুঝতে পারছি না, এ ছবিতে বিশেষ কী আছে? নিম্ন রুচির বিকারগ্রস্ত কতগুলো লোকের কিছু মন্তব্যে আমি খুবই হতাশ হয়েছি। এটা সাইবার বুলিং, এটা অপরাধ।’
মিথিলা জানান, তাঁর উপস্থাপনায় বাংলাভিশনে ‘আমার আমি’ অনুষ্ঠানের একটি পর্বের শুটিংয়ে এসেছিলেন শিল্পী জন কবির ও তানযীর তুহিন। সেই সেটেই ছবিটি তুলেছিলেন জন-মিথিলা। তিনি বলেন, ‘সেটে তো আমি সব সময়ই অতিথিদের সঙ্গে ছবি তুলি। এই ছবিও রসিকতাচ্ছলে তুলে আপলোড করা হয়। মানুষ যে এতে অতি প্রতিক্রিয়া দেখাবে, সেটা বুঝিনি।’
নিজেদের সেলফিতে নেতিবাচক মন্তব্য দেখে জন কবিরের প্রতিক্রিয়া কী? তিনি বলেছেন, ‘আমার কিচ্ছু যায়-আসে না। কারণ, আমরা এমন একটা জায়গায় পৌঁছে গেছি যে চিন্তাভাবনা ছাড়াই যেকেউ যে-কারও ব্যাপারে কিছু একটা বলে দিতে পারি।’‘আমার আমি’ অনুষ্ঠানের একটি পর্বে একসঙ্গে দেখা যাবে শিরোনামহীন ব্যান্ডের সাবেক কণ্ঠশিল্পী তানযীর তুহিন আর ব্ল্যাক ব্যান্ডের সাবেক কণ্ঠশিল্পী জন কবিরকে। মিথিলার অতিথি হিসেবে ওই অনুষ্ঠানে নিজেদের সংগীতজীবন, পরিবার, সংগীত নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাসহ অনেক কথা বলেছেন তাঁরা। নিজেদের নিয়ে নানা রকম ট্রল প্রসঙ্গেও উপস্থাপিকা মিথিলা জানতে চান শিল্পী জনের প্রতিক্রিয়া। তাঁর প্রশ্নে জন বলেছেন, ‘শুধু কাজকে কেন্দ্র করে মানুষ যে মজার মজার জিনিস বানায়, সেটা শেষ পর্যন্ত আর মজা থাকে না। বিরক্তির পর্যায়ে চলে যায়। ফেসবুকের কল্যাণে মানুষ এখন যা খুশি তা-ই করছে।’
মিথিলা বলেন, ‘মানুষ আমাদের নিয়ে আগেও ট্রল করেছে। সেটা নিয়ে ওই অনুষ্ঠানে আমরা কথা বলেছি, হাসাহাসি করেছি। তারই সূত্র ধরে জন ওই সেলফিটা তুলেছিল এবং মজা করার জন্যই আপলোড করেছিল। বিষয়টি যে হিতে বিপরীত হবে, বুঝতে পারিনি। মানুষ প্রমাণ করে দিয়েছে যে তারা কতটা কুরুচির অধিকারী।’
‘শিরোনামহীনের তুহিন’ বা ‘ব্ল্যাকের জন’ হিসেবে পরিচিত হলেও ব্যান্ড দুটির সঙ্গে নেই এই শিল্পীদের কেউ। তুহিন গড়েছেন নতুন ব্যান্ড ‘আভাস’, অন্যদিকে ‘ইনডালো’ নামে একটি ব্যান্ড গড়েছেন জন। ব্ল্যাক ব্যান্ডের শিল্পী হিসেবে তাহসান, জন ও মিথিলার বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। পরে বিয়ে করেন তাহসান ও মিথিলা। গত বছর বিবাহবিচ্ছেদ হয় তাঁদের। তাহসান ব্ল্যাক ছেড়ে গেছেন, বিচ্ছিন্ন হয়েছেন মিথিলার সঙ্গেও। কিন্তু জনের সঙ্গে বন্ধুত্বে এতটুকু ভাঁটা পড়েনি মিথিলার। একত্রে বিভিন্ন মাধ্যমে নিরবচ্ছিন্ন কাজ করে যাচ্ছেন এ দুই তারকা। বন্ধুর সঙ্গে ফেসবুকে ছবি প্রকাশ প্রসঙ্গে জন বলেন, ‘আপনি একজন ছেলেবন্ধুর সঙ্গে ফেসবুকে ছবি দেন, আর একজন মেয়েবন্ধুর সঙ্গে ছবি দেন। দেখুন মানুষ কোন ছবিতে মানুষ কী ধরনের মন্তব্য করে!’
নতুন ব্যান্ড ইনডালোর নতুন অ্যালবাম ‘উত্তর খুঁজছি দক্ষিণে’র প্রস্তুতি নিয়ে ব্যস্ত জন কবির। আগামি বছরের এক ঈদে অ্যালবামটি প্রকাশ করবেন তাঁরা। আর দুই ব্যান্ড তারকা জন কবির ও তানযীর তুহিনকে নিয়ে মিথিলার উপস্থাপনায় ‘আমার আমি’ অনুষ্ঠানটি ২২ ডিসেম্বর রাত ৯টা ৫ মিনিটে দেখানো হবে বাংলাভিশনে, নিশ্চিত করেছেন চ্যানেলটির অনুষ্ঠান বিভাগের প্রধান তারেক আখন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *