ভাঙ্গুড়ায় অর্থের অভাবে চিকিৎসা হচ্ছে না পঙ্গু সোলাইমানের

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি : দুই সন্তানের জনক মোঃ সোলাইমান হোসেন (৪০) এখন পঙ্গু। পেশায় তিনি একজন শ্রমিক। সংসারে অভাব-অনটন লেগে থাকলেও কখনও কাউকে বুঝতে দেননি তিনি। স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে তার সংসার জীবন। সোলাইমান পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার মন্ডুতোষ ইউনিয়নের দিয়ারপাড়া গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে।

২০০৬ সালে তিনি জীবিকার সন্ধানে ঢাকায় যান। সেখানে বসুন্ধরা কোম্পানিতে টুল কালেক্টর পদে চাকরি পান। গত বছর তিনি ছুটি নিয়ে ঢাকা থেকে ট্রেনে বাড়ি ফেরার সময় সিরাজগঞ্জের সলপ স্টেশন পার হতেই একটি চক্রের হাতে পড়েন। এ সময় চক্রটি তার কাছে থাকা টাকা-পয়সা ছিনিয়ে নিয়ে তাকে ট্রেন থেকে ফেলে দেয়। এতে পঙ্গু হয়ে যায় তার একটি পা। বন্ধ হয়ে যায় তার কর্মজীবন। সোলাইমানের সুস্থ হওয়ার জন্য কমপক্ষে তিন থেকে চার লাখ টাকা প্রয়োজন। তবে চিকিৎসার এ ব্যয় বহন করা সম্ভব হচ্ছে না অসহায় পরিবারটির পক্ষে। এজন্য সমাজের বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

সোলাইমানের স্ত্রী বিউটি বলেন,অভাবের সংসার। বসত ভিটাছাড়া মাঠে কোনো জায়গায়জমি নেই। তার চিকিৎসা আর সংসারের খরচ কুলিয়ে উঠতে পারছেন না।

অর্থের অভাবে চিকিৎসা হচ্ছে না তার। সোলাইমান বর্তমানে সিরাজগঞ্জ নর্থ বেঙ্গল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিভাগীয় প্রধান ও অর্থোপেডিক্স বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. মোঃ শামীম আদমের তত্ত্বাবধায়নে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সোলাইমান ও তার পরিবারকে সাহায্য করতে ০১৭৪২-৭৪৭৪৪৬ নম্বরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *