ভাঙ্গুড়ায় গৃহবধূ মিনা মৃত্যুর বিচার দাবিতে মানববন্ধন

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনার ভাঙ্গুড়ায় গৃহবধূ মিনা খাতুন (৩৫)’র মৃত্যুকে হত্যা অভিযোগ করে ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবিতে মানববন্ধন হয়েছে। শনিবার (২৭ জুন) সকাল সাড়ে ১১টায় ভাঙ্গুড়া পৌর সদরের বকুলতলায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে অংশ নেয় গৃহবধূ মিনার স্বজন ও এলাকাবাসী।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, মন্ডুতোষ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নুর ইসলাম মিন্টু, গৃহবধূ মিনার খালা শিল্পী খাতুন, মামাতো ভাই কারিম হোসেন প্রমুখ।

মানববন্ধন থেকে স্বজনরা অভিযোগ করেন, উপজেলার মন্ডুতোষ গ্রামের মৃত আবু হোসেনের ছেলে আব্দুল খালেক ১৬ বছর আগে তার চাচাতো বোন একই গ্রামের মন্তাজ আলীর মেয়ে মিনা খাতুনকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর তাদের সংসারে আসে তিনটি ছেলে সন্তান। শ্বশুড় মন্তাজ আলীর সমস্ত সম্পত্তি নিজের নামে লিখে চান আব্দুল খালেক। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে ১২ বিঘা জমি একমাত্র সন্তান মিনার নামে দানপত্র রেজিস্ট্রি করে দেন মন্তাজ আলী। এতে আব্দুল খালেক রাগান্বিত হয় এবং মিনাকে আবার ওই জমি তার নামে লিখে দিতে বলেন। এতে মিনা রাজি না হওয়ায় প্রায়ই নির্যাতন করতেন। পরে ৫ বছর আগে খালেক দ্বিতীয় বিয়ে করে তাকে নিয়ে ঢাকায় চলে যান এবং সেখানে একটি পোষাক কারখানায় চাকরি করেন। তিনি মাঝে মধ্যে গ্রামে আসলেও তবে মিনার সাথে তার সুসম্পর্ক ছিলনা। মিনার দেবর শানিল হোসেনও বড় ভাবী মিনাকে অত্যাচার করতেন।

এরই এক পর্যায়ে স্বামী খালেক ও তার পরিবারের লোকজন গত ২২ জুন তিন সন্তানের জননী মিনা খাতুনকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যার করে সেটিকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছেন বলে দাবি করছেন মিনার স্বজন ও প্রতিবেশিরা। এ ঘটনায় জড়িতদের দ্রæত গ্রেপ্তার ও বিচার দাবি করেন তারা।

উল্লেখ্য, গত ২২ জুন সকালে ভাঙ্গুড়া উপজেলার মন্ডুতোষ গ্রামের আব্দুল খালেকের বাড়ির রান্নাঘর থেকে তার স্ত্রী মিনা খাতুনের গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে ময়না তদন্ত শেষে মরদেহ দাফন করা হয়।

ভাঙ্গুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদ রানা জানান, ওই গৃহবধূর পরিবারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। প্রাথমিকভাবে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে। ময়না তদন্ত প্রতিবেদন পেলে সে মোতাবেক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আর এ বিষয়ে মানববন্ধনের বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না বলে জানান।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *