ভাঙ্গুড়ায় পুলিশের ওপর হামলা; আ.লীগ নেতাসহ গ্রেপ্তার তিন

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি : পাবনার ভাঙ্গুড়ায় পুলিশের ওপর হামলা এবং কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীনসহ তিন জনকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। এ ঘটনায় ভাঙ্গুড়া থানার ওসি (তদন্ত)সহ চার পুলিশ সদস্য হামলার শিকার হন।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে এসআই ইব্রাহিম খলিল বাদি হয়ে ২০ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় একটি মামলা দায়ের করে। গ্রেপ্তারকৃত জযনাল আবেদীন উপজেলার দিলপাশার ইউনিয়নের বেতুয়ান গ্রামের মৃত হারুনার রশিদ সরকারের ছেলে। অপর দুজন হলো পার্শ্ববর্তী ফরিদুপর উপজেলার বৃলাহিড়িবাড়ী গ্রামের ওয়াজেদ আলী ও সাইদুর রহমান।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে বুধবার সকাল ১০টার দিকে ভাঙ্গুড়া উপজেলার দিলপাশার ইউনিয়নের বেতুয়ান দক্ষিণপাড়ার আব্দুল হান্নান ও তার ছেলে স¤্রাটের নেতৃত্বে দলবেধে মাইকে ঘোষনা দিয়ে লাঠি-সোটা এবং ধারালো অস্ত্র শ্বস্ত্র নিয়ে মুখোমুখি হলে পুলিশ তা প্রতিহত করে। এ সময় জয়নাল আবেদীন ও অপর ব্যক্তিরা পুলিশের কাজে বাধা প্রদান করে। এমনকি তারা ওসি তদন্ত নাজমুল হকের ঘারের উপর লাঠি দিয়ে আঘাত করে।এছাড়া এসআই ইব্রাহিম খলিল ও এসআই সাজেদুর রহমানের উপরও তারা লাঠিচার্জ করে। ফলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশকে হিমশিম খেতে হয়। তখন একটি পক্ষের লোকজন বিএলবাড়ি মার্কেটে কয়েকটি দোকান ঘর ভাংচুর করে।

এ ব্যাপারে আ.লীগ নেতা জয়নাল আবেদীন বলেন,ওই ঘটনার সময় দুই গ্রামের লোকজনের সংঘর্ষ ঠেকাতে আমি পুলিশকে প্রত্যক্ষ ভাবে সহযোগিতা করেছি। তারপরও আজ বৃহস্পতিবার ভাঙ্গুড়া বাজারে এলে পুলিশ আমাকে গ্রেফতার করে। বিষয়টি রহস্যজনক বলে তিনি দাবি করেন।

ভাঙ্গুড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নাজমুল হক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,পুলিশের উপর লাঠি চার্জ ও সরকারি কাজে বাধা প্রদানের জন্য বৃহস্পতিবার জয়নাল আবেদীনসহ তিন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে পাবনা জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

ভাঙ্গুড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মুহম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন,ঘটনার সময় শত শত বিশৃংখল লোকের মধ্যেও পুলিশ জানমালের কোনো ক্ষতি হতে দেয়নি। কিন্তু আটক ব্যক্তিরা পুলিশের উপর লাঠি চার্জ করে বসে। এ ব্যাপারে দারোগা ইব্রাহিম খলিল বাদি হয়ে বৃহস্পতিবার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন,মামলা নং ০২।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *