মাস্ক পরলে ৩ মাসে ৭০ হাজার মার্কিনির জীবন বাঁচানো সম্ভব: গবেষণা

বিদেশ : যুক্তরাষ্ট্রে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে প্রায় এক লাখ ৭৬ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। স্বাস্থ্যসুরক্ষা বিধি মেনে চলা বাধ্যতামূলক না করলে ডিসেম্বর নাগাদ আরও এক লাখ ৩৪ হাজার মানুষের মৃত্যু হবে বলে আশঙ্কা গবেষকদের।

চলমান বিধিনিষেধ তুলে নিলে মৃত্যুর সংখ্যা আরো অনেক বাড়বে বলেও ধারণা তাদের। ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ইন্সটিটিউট ফর হেল্থ ম্যাট্রিক্স অ্যান্ড ইভাল্যুয়েশন’ (আইএইচএমই) থেকে করোনাভাইরাসে মৃত্যু নিয়ে এ অভিক্ষেপন করা হয়। মৃত্যু নিয়ে এই পূর্বানুমানের পাশপাশি এ থেকে বাঁচার পথও দেখিয়ে দিয়েছেন গবেষকরা।

শুক্রবার রাতে আইএইচএমই-এর প্রধান ডা. ক্রিস মারি সিএনএন’কে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের আরো বেশি বাসিন্দা যদি মাস্ক পরা শুরু করে তবে আগামী তিন মাসে প্রায় ৭০ হাজার মানুষের প্রাণ রক্ষা করা সম্ভব হবে। ‘‘এটি আসলে আমাদের নেতারা এবং প্রতিটি বাসিন্দার উপর নির্ভর করছে। প্রত্যেক ব্যক্তি কী করেন এবং নেতারা কী উদ্যোগ নেয় তার উপর।” আইএইচএমই-র পূর্বাভাসে বলা হয়, ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধের এখন যে অবস্থা তার পরিবর্তন আনা না গেলে সেপ্টেম্বরে মৃত্যু হার যতটুকু হ্রাস পেয়েছে শীত শুরুর আগেই তা আবার বাড়তে শুরু করবে এবং ডিসেম্বরের ১ তারিখ নাগাদ মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় তিন লাখ ১০ হাজারে পৌঁছবে।

তবে যদি পরিবর্তনের উদ্যোগ নেওয়া হয় তবে এই অনুমানও পাল্টে যাবে বলে জানান তিনি। জন্স হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যানুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার হ্রাস পেয়েছে। যদিও সেই তুলনায় মৃত্যুহার এখনও বাড়ছেই। গত শুক্রবারের হিসাব অনুযায়ী, ওই সপ্তাহে দেশটিতে গড়ে প্রতিদিন ৯৮৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। তিন সপ্তাহের বেশি সময়ের মধ্যে গড় মৃত্যু প্রথম এক হাজারের নিচে নেমেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের কিছু অঙ্গরাজ্যে এখন সংক্রমণের গতি নিম্মমুখী বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু নেব্রাস্কা ও ওকলাহামার মতো মধ্যাঞ্চলীয় অঙ্গরাজ্যগুলোতে সংক্রমণ কমছে না, বরং এক জায়গায় আটকে আছে। এ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ইউএস সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন এর পরিচালক ডা. রবার্ট রেডফিল্ড। গত বৃহস্পতিবার তিনি বলেন, ‘‘আমাদের এখন তৃতীয় ঢেউয়ের কোনও প্রয়োজন নেই। আমাদের এটা থামানো প্রয়োজন।”

মারি বলেন, ‘‘এখন স্বাস্থ্যসুরক্ষা ব্যবস্থা গ্রহণ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। গভর্নরদের উচিত এখনই মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা। মাস্ক না পরলে আইনি শাস্তির ব্যবস্থাও করা দরকার। যাতে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ মাস্ক না পরে বের হওয়া বাসিন্দাদের জরিমানা করতে পারে। ‘‘একটি সমন্বিত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। যার প্রভাব হবে অসাধারণ।”

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *