যুক্তরাষ্ট্রে কোভিড রোগীর সংখ্যা এক কোটি ৬০ লাখ ছাড়াল

বিদেশ : যুক্তরাষ্ট্রে শনাক্ত করোনাভাইরাস রোগীর সংখ্যা এক কোটি ৬০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে আর মৃত্যুর সংখ্যা তিন লাখের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে।

রোববার দেশজুড়ে কোভিড টিকা বিতরণ শুরু হওয়ার আগের দিন শনিবার বিকালে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা উদ্বেগজনক ওই মাইলফলক পার হয় বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের দৈনন্দিন জীবন ওলটপালট করে দেওয়া ও দেশটির অর্থনীতিকে বিধ্বস্ত করে দেওয়া মহামারী অবসানের লক্ষে শুক্রবার জরুরিভিত্তিতে ফাইজার-বায়োএনটেকের কোভিড টিকা অনুমোদন করেছে দেশটির খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ)। “এফডিএ জরুরি ব্যবহারের জন্য ফাইজারের টিকা অনুমোদন করেছে!!!”

শুক্রবার রাতে টুইটারে এক ঘোষণায় জানান প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। ২৪ ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যে টিকা দেওয়া শুরু হবে বলে জনগণকে প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। কিন্তু শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে টিকা বিতরণের তদারকির দায়িত্বে থাকা যুক্তরাষ্ট্র সেনাবাহিনীর জেনারেল গুস্তাফ পেরনা জানান, রোববার টিকার প্রথম চালানের সরবরাহ শুরু করা হবে এবং সোমবারের মধ্যে দেশের ১৪৫টি স্থানে টিকা বিতরণ করা হবে।

রাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের অঞ্চলগুলোর নির্বাচন করা বাকি ৬৩৬টি স্থানে মঙ্গলবার ও বুধবারের মধ্যে টিকার ডোজ পৌঁছে যাবে বলে জানিয়েছেন তিনি। ফাইজারের এই টিকা অনুমোদনের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রে মহামারী নিয়ন্ত্রণে নতুন প্রচেষ্টা শুরু হয়েছে।

এ মহামারীতে বিশ্বের যে কোনো দেশের তুলনায় এখানে অনেক বেশি লোকের মৃত্যু হয়েছে। রোববার সকাল পর্যন্ত কোভিডজনিত কারণে দেশটিতে মোট দুই লাখ ৯৭ হাজার ৮১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান জানাচ্ছে। রয়টার্সের টালি অনুযায়ী, শুক্রবার দেশটিতে দুই লাখ ৩২ হাজার ৭০০ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে।

দেশটিতে সর্বাধিক দৈনিক রোগী শনাক্তের নতুন রেকর্ড এটি। এদের নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে মোট শনাক্ত করোনাভাইরাস রোগীর সংখ্যা এক কোটি ৬০ লাখ ৬২ হাজার ২৯৯ জনে দাঁড়িয়েছে বলে জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় জানিয়েছে।

গত সাত দিনের গড় অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিন দুই হাজার ৪১১ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। মহামারী শুরু হওয়ার পর থেকে এটিই এক সপ্তাহে সর্বোচ্চ গড় মৃত্যু। সাম্প্রতিক সংক্রমণ বৃদ্ধিতে ফের রোগীতে উপচে পড়ার মুখে পড়েছে দেশটির স্বাস্থ্য ব্যবস্থা।

শুক্রবার পর্যন্ত দেশটির হাসপাতালগুলোতে এক লাখ সাত হাজার ৬৮৪ জন করোনাভাইরাস রোগী ভর্তি ছিল। মহামারী শুরু হওয়ার পর থেকে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া সর্বাধিক রোগীর সংখ্যা এটি।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *