যুক্তরাষ্ট্রে বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনকর্মীর মরদেহ উদ্ধার

বিদেশ : জর্জ ফ্লয়েড হত্যার জেরে যুক্তরাষ্ট্রে চলমান বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনের মধ্যে আটলান্টার একটি রেস্তোরাঁর কাছে শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তার গুলিতে নিহত হন ২৭ বছর বয়সী কৃষ্ণাঙ্গ যুবক ব্রুকস। এদিকে সোমবার ফ্লোরিডার রাজধানী শহর তালাহাসি থেকে আন্দোলনের আরেক কর্মীর মরদেহ উদ্ধার হয়েছে।

এক অনলাইন প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, তালাহাসি পুলিশ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়েছে, শহর থেকে ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ ব্যানারের আন্দোলনকর্মী এক নারীর মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। কয়েকদিন আগে থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। এ ব্যাপারে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। পুলিশ বলছে, শনিবার রাতে ১৯ বছর বয়সী ওলুওয়াতোয়াইন সালাউ ও ৭৫ বছরের এক বৃদ্ধাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে।

দুজনের মধ্যে কী সম্পর্ক ছিল বা কীভাবে তাদের হত্যা করা হয়েছে সে সম্পর্কে কর্তৃপক্ষ এখনও বিস্তারিত কিছু প্রকাশ করেনি। হত্যা মামলা হিসেবে উভয় মৃত্যুর ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে। স্থানীয় সময় শনিবার ওই মরদেহ দুটি উদ্ধারের পর সন্দেহভাজন এক ব্যক্তিকে পুলিশের হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। তার নাম অ্যারন গ্লে জুনিয়র। বয়স ৪৯ বছর।

তাকে জিজ্ঞাসবাদ করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। যুক্তরাষ্ট্রে চলমান বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনের একজন সক্রিয় কর্মী ওলুওয়াতোয়াইন সালাউ। বিক্ষোভ চলাকালীন গত ৬ জুন থেকে তিনি নিখোঁজ। ওইদিন সালাউ বেশ কয়েকটি টুইট করে জানান, সকালবেলা সে যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছে। এরপর থেকে তার খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না।

গত ২৫ মে যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের মিনিয়াপোলিস শহরে শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তার হাতে কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর পর যুক্তরাষ্ট্রে আন্দোলন শুরু হয়। এরইমধ্যে আটলান্টায় পুলিশের গুলিতে আরেক কৃষ্ণাঙ্গ যুবকের নিহত হওয়ার ঘটনায় গোটা দেশ এখন ক্ষোভে ফুঁসছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *